শনিবার, ১০ই ডিসেম্বর, ২০২২ ইং, ২৫শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৫ই জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরী
শনিবার, ১০ই ডিসেম্বর, ২০২২ ইং

জালাল উদ্দিন আহমেদ শরীয়তপুর জেলা প্রশাসক শিক্ষা পদকে ভূষিত

জালাল উদ্দিন আহমেদ শরীয়তপুর জেলা প্রশাসক শিক্ষা পদকে ভূষিত

শরীয়তপুর জেলা প্রশাসক এর কার্যালয় জালাল উদ্দিন আহমেদকে জেলাপ্রশাসক শিক্ষা পদক-২০২১ ভূষিত করা হয়েছে।

২০ নভেম্বর ২০২২ইং তারিখ রবিবার সকাল ১১টায়, শরীয়তপুর জেলা প্রশাসক এর কার্যালয়, জেলা প্রশাসক মোঃ পারভেজ হাসান এর সভাপতিত্বে, শরীয়তপুর জেলা প্রশাসক শিক্ষা পদক ২০২১ প্রদান অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। জালাল উদ্দিন আহমেদকে জেলাপ্রশাসক শিক্ষা পদক-২০২১ ভূষিত হিসাবে শরীয়তপুর জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে এ আয়োজন করা হয়েছে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সাথে জেলাপ্রশাসকের ৩ বছর মেয়াদী কর্ম-পরিকল্পনার অংশ হিসেবে জেলা প্রশাসন, শরীয়তপুর চালু করেছে “জেলাপ্রশাসক শিক্ষা পদক”। তারই অংশ হিসেবে রবিবার ২০ নভেম্বর ২০২২ইং তারিখ জালাল উদ্দিন আহমেদকে জেলাপ্রশাসক শিক্ষা পদক-২০২১ ভূষিত করা হয়েছে।

পদ্মা ও মেঘনা নদী বিধৌত উর্বরভূমি এই শরীয়তপুর জেলা।দীর্ঘদিন থেকেই শিক্ষা ক্ষেত্রে উন্নয়নের জন্য ব্যক্তি পর্যায়ে অনেকে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলেছেন। শিক্ষায় অনন্য অবদান রাখা সেসকল ব্যক্তিকে স্বীকৃতি প্রদান করা হলে তাঁরা উৎসাহ পাবেন বহুগুণে। সেই ভাবনা থেকেই শরীয়তপুর জেলার সুযোগ্য জেলাপ্রশাসক মোঃ পারভেজ হাসান এ উদ্যোগ গ্রহণ করেন। শিক্ষার প্রসার এবং মানোন্নয়নে যারা কাজ করেন মূলত তাদেরই এ পদক প্রদান করা হয়। প্রতিবছর শিক্ষা-সংস্কৃতির বিস্তৃতি , সামাজিক কুসংস্কার দূরকরণ, সমাজ সংস্কার, সামাজিক পরিকাঠামো উন্নয়নে যারা সমাজে ভূমিকা রাখবেন তাদের কৃতিত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরুপ এ পদকে ভূষিত করা হবে।

জালাল উদ্দিন আহমেদ শরীয়তপুর জেলার একজন বিদ্যানুরাগী ব্যক্তি। শরীয়তপুর জেলার রুদ্রকর ইউনিয়নে ১৯৩৮ সালে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে সক্রিয় অংশগ্রহণ ছিল তার। ঢাকার জগন্নাথ কলেজ (বর্তমানে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়) হতে বিএ অনার্স শেষ করেন। ১৯৬৭-৯৮ সাল পর্যন্ত প্রায় ৩১ বছর পালং তুলাসার গুরুদাস উচ্চ বিদ্যালয়ে সাফল্যের সাথে শিক্ষকতা করেন তিনি। এছাড়াও শরীয়তপুর পাবলিক লাইব্রেরির প্রতিষ্ঠাতা সহ:সাধারন সম্পাদক, কালেক্টরেট স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা, শিল্পকলা একাডেমির প্রতিষ্ঠাতা সহঃ সাধারণ সম্পাদক ছিলেন তিনি। পাঁচবার শরীয়তপুর জেলায় শ্রেষ্ঠ শিক্ষক হিসেবে তিনি নির্বাচিত হন। ৮৫ বছর বয়সেও শিক্ষার্থীদের পাঠদান করে চলেছেন এই অদম্য জ্ঞানতাপস ব্যক্তি।

“জেলাপ্রশাসক শিক্ষা পদক” সম্পর্কে মোঃ পারভেজ হাসান, জেলাপ্রশাসক বলেন” শিক্ষা আমাদের মৌলিক চাহিদা। একটি জ্ঞানভিক্তিক সমাজ ব্যবস্থা গড়তে শিক্ষার কোন বিকল্প নেই। শিক্ষার আলো ছড়াতে ব্যক্তি পর্যায়ে জ্ঞানের ফেরীওয়ালাদের জেলাপ্রশাসনের উদ্যোগে জেলাপ্রশাসক শিক্ষা পদক প্রতিবছর প্রদান করা হবে। আমি মনে করি এ পদকের মাধ্যমে শরীয়তপুর জেলায় শিক্ষা বিস্তারে যারা আন্তরিকভাবে কাজ করেন, কিছুটা হলেও উৎসাহিত হবেন”।

জেলাপ্রশাসক শিক্ষা পদকপ্রাপ্তকে একটি ক্রেস্ট, একটি সম্মাননা সনদ এবং ২০,০০০ টাকার চেক প্রদান করা হয়ে থাকে।

সভায় উপস্থিত ছিলেন জেলাপরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ শামীম হোসেন, অতিরিক্ত জেলাপ্রশাসক (সার্বিক) মুহাম্মদ তালুত, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ তানভীর হায়দার শাওন সহ জেলা পর্যায়ের সরকারি দপ্তরের দপ্তরপ্রধানগণ, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, সাংবাদিকগণ।


error: Content is protected !!