Thursday 30th May 2024
Thursday 30th May 2024

Notice: Undefined index: top-menu-onoff-sm in /home/hongkarc/rudrabarta.net/wp-content/themes/newsuncode/lib/part/top-part.php on line 67

ভেদরগঞ্জে মেঝে থেকে ৩৬টি সাপের ডিম উদ্ধার

ভেদরগঞ্জে মেঝে থেকে ৩৬টি সাপের ডিম উদ্ধার

মাত্র দুই সপ্তাহের ব্যবধানে সাপের দংশনে ঝরে গেছে তাজা দুটি প্রাণ। এর আগে থানার ভেতর সাপের উপদ্রব দেখা দিলে সাপ তাড়াতে ওঝা ডেকেছিল পুলিশ।

এসব ঘটনার রেশ না কাটতেই এবার এক কৃষকের ফসল ও লাকড়ি রাখার একটি ঘরের মেঝে খুঁড়ে ৩৬টি সাপের ডিম উদ্ধার করা হয়েছে। সাপের এমন উপদ্রবে চিন্তিত হয়ে পড়েছে শরীয়তপুরের চরাঞ্চলের বাসিন্দারা।

সোমবার (১৩ মে) বিকেলে শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলার সখিপুর থানার চরভাগা ইউনিয়নের ঢালী কান্দি গ্রামের দেওয়ান বাড়ির একটি ঘরের মেঝে থেকে ডিমগুলো উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয় ও সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, গতকাল রোববার সখিপুর বাজারের ব্যবসায়ী সেলিম মাদবরসহ দুই সপ্তাহের ব্যবধানে সখিপুরে সাপের দংশনে দুই জনের মৃত্যু হয়েছে। এর আগে গত ২৫ মার্চ সখিপুর থানা ভবনসহ থানার আবাসিক এলাকায় সাপ ঢুকে পড়লে সাপ তাড়াতে ওঝা ডেকেছিলেন থানার ওসি।

এসব ঘটনার রেশ না কাটতেই সোমবার বিকেলে চরভাগার ঢালী কান্দি গ্রামের দেওয়ান বাড়ির আকবর দেওয়ানের ফসল ও লাকড়ি রাখার একটি ঘরে ইঁদুরের গর্তে সাপ ও সাপের ডিম দেখতে পায় বাড়ির লোকজন। তারপর সাপ ও ডিম সরিয়ে নিতে স্থানীয় সাপুড়ে মিনু ঢালীকে খবর দেওয়া হয়।

সাপুড়ে মিনু ঢালী এসে ওই ঘরটির মেঝে খুঁড়ে গর্ত থেকে একে একে বের করে আনেন ৩৬ টি সাপের ডিম। সাপের এমন উপদ্রবে সখিপুরের নদী বেষ্টিত চরাঞ্চলের বাসিন্দারা চিন্তিত হয়ে পড়ছেন। সখিপুরের জনপ্রতিনিধিসহ সংশ্লিষ্টরা বাসিন্দাদের সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।

সাপের ডিম উদ্ধার হওয়া বাড়ির বাসিন্দা মো. আল আমিন দেওয়ান বলেন, প্রথমে সাপ দেখতে পেয়েছি আমরা। এরপর সাপুড়ে ডেকে গর্ত খুড়ে সাপ ধরার চেষ্টা করলে সাপ পাওয়া যায়নি, তবে ওই গর্ত থেকে সাপের ৩৬ টি ডিম উদ্ধার করেছে ওঝা।

সাপুড়ে মিনু ঢালী দৈনিক রুদ্রবার্তাকে  বলেন, খবর পেয়ে দেওয়ান বাড়ির একটি ঘরের মেঝে খুড়ে ৩৬ টি সাপের ডিম উদ্ধার করেছি। ডিমগুলো গোখরা সাপের বলে ধারণা করছি। আমি ঘটনাস্থলে যাওয়ার আগেই সম্ভবত সাপ চলে গেছে। বর্তমান সময়ে সখিপুরে সাপের উপদ্রব বেড়েছে। গতকালকেও আমি একজন সাপে কাটা লোকের জানাজা নামাজ পড়েছি।

বিষয়টি নিয়ে চরভাগা ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য জান শরীফ মাঝি দৈনিক রুদ্রবার্তাকে  বলেন, নদী বেষ্টিত এলাকা হওয়ায় এখানে সাপের উপদ্রব বেশি। বাড়ির কোনো ঘরের মেঝে থেকে সাপের ডিম উদ্ধার হওয়ার ঘটনা তেমন স্বাভাবিক নয়।

‘সাপের উপদ্রব থেকে সচেতন থাকার জন্য আমরা হাট বাজারসহ ফেসবুকেও প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছি। সাপে কাটার পর রোগীকে দ্রুত হাসপাতালে নিতে হবে। সচেতন হওয়া ছাড়া আমাদের এখন বিকল্প কোনো পথ নেই,’ দৈনিক রুদ্রবার্তাকে  বলেন জান শরীফ মাঝি।