Friday 21st June 2024
Friday 21st June 2024

Notice: Undefined index: top-menu-onoff-sm in /home/hongkarc/rudrabarta.net/wp-content/themes/newsuncode/lib/part/top-part.php on line 67

জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ এবার শরীয়তপুর সদর উপজেলার শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক মেহেদী রহমান মিজান

জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ এবার শরীয়তপুর সদর উপজেলার শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক মেহেদী রহমান মিজান

জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০২৪ এ শরীয়তপুর সদর উপজেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক  নির্বাচিত হয়েছেন চন্দ্রপুর আবদুল হাকিম পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক  মেহেদী রহমান মিজান। প্রতি বছরের নেয় এ বছরও জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ উদযাপন উপলক্ষ্যে শিক্ষা সেক্টরে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে যেমনঃ শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান প্রধান,  শ্রেষ্ঠ শ্রেণি শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন বিষয়ে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনের স্বীকৃতি স্বরূপ নির্বাচিত ও পুরস্কৃত করা হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারের নেতৃত্ব ও তত্ত্বাবধানে এ আয়োজন ও শ্রেষ্ঠত্বের মানদন্ড নির্ণয় করা হয়।

এবছর শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক হওয়ার গৌরব অর্জনকারী মেহেদী রহমান মিজান একাধারে একজন ভালো (ইংরেজি) শিক্ষক, একজন কবি, গীতিকার, সাহিত্য সংগঠক ও সম্পাদক। তিনি অত্র প্রতিষ্ঠানে ২০১৭ সালে ১জুন তারিখে প্রধান শিক্ষক হিসেব যোগদান করে অত্যন্ত যোগ্যতা দক্ষতা সততা স্বচ্ছতা নিয়মানুবর্তিতা নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করে যথেষ্ট সুনাম অর্জন করেছেন। তিনি এর আগে রুদ্রকর নীলমনি উচ্চ বিদ্যালয়ে ২০১১ হতে ২০১৭ মে মাস পর্যন্ত সিনিয়র সহকারী ইংরেজি শিক্ষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন এবং ২০০২ সাল হতে ২০১১ জুলাই পর্যন্ত বিনোদপুর মৌলভীকান্দী দাখিল মাদ্রাসায় সহকারী শিক্ষক (ইংরেজি ও গণিত) হিসেবে অত্যন্ত দক্ষতা ও সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি বিদ্যালয় সংশ্লিষ্ট ম্যানেজিং কমিটি, শিক্ষক-কর্মচারী, শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও এলাকাবাসীর সাথে অত্যন্ত সুসম্পর্ক রেখে চলেন। শিক্ষার্থীদেরকে সন্তানের মত ভালোবাসেন আবার অন্যায় পথ থেকে ফিরিয়ে রেখে যোগ্য সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে সুশাসনও করে থাকেন।

শিক্ষা সনদানুযায়ী নাম মেহেদী রহমান মিজান। তবে লেখক নাম খান মেহেদী মিজান এবং লেখকের ছদ্মনাম পান্থ মুসাফির। শরীয়তপুর সদর উপজেলার বিনোদপুর ইউনিয়নে খান পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন । পিতা মরহুম মোঃ হাসমত আলী খান, মাতা হাজী মনোয়ারা বেগম। শিক্ষা জীবন শুরু তাদেরই পূর্বপুরুষের কোনো এক শিক্ষানুরাগী মহৎ ব্যক্তির দ্বারা ১৯০৬ সালে প্রতিষ্ঠিত ৩১ নং পশ্চিম বিনোদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে থেকে। উল্লেখ্য, প্রতিষ্ঠাতা পরিবারের উত্তরসূরী হিসেবে তারা এ প্রতিষ্ঠানের আজীবন দাডা সদস্য। শিক্ষাগত যোগ্যতা এম.এ (ইংরেজি), এম.এড, এলএলবি। তিনি স্থানীয় দৈনিক রুদ্রবার্তা পত্রিকার সাবএডিটর সহ বিভিন্ন পত্রিকায় সাংবাদিকতাও করেছেন। প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ ২টি। দেশ বিদেশের বিভিন্ন সংগঠন সংস্থা থেকে শিক্ষা, সাহিত্য ও সম্পাদনা কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ সম্মাননা পুরস্কার পেয়েছেন ৫টি। কোলকাতার জাগ্রত পত্রিকায় তার লেখা প্রকাশিত হয়ে থাকে। সম্পাদকঃ সাহিত্য ছোট কাগজ-১. কীর্তিনাশার কাব্য,  ও ২. আরশী। প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতিঃ কবি খান মেহেদী মিজান পাবলিক লাইব্রেরি। জেলা সভাপতিঃ গাঙচিল সাহিত্য সংস্কৃতি পরিষদ ও বিশ্ব বাংলা সাহিত্য পরিষদ, সাঃ সম্পাদক- যুগান্তর স্বজন সমাবেশ ও নাগরিক অধিকার বাস্তবায়ন কমিটি, শরীয়তপুর। সভাপতিঃ ৯৮ নং জনুল্যামাদবর কান্দী সরঃপ্রাঃবিঃ বিনোদপুর। ব্যক্তিগত জীবনে একমাত্র (কন্যা) সন্তানের পিতা। সহধর্মীনি সরকারী হাইস্কুল শিক্ষক।