মঙ্গলবার, ৯ই মার্চ, ২০২১ ইং, ২৪শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৪শে রজব, ১৪৪২ হিজরী
মঙ্গলবার, ৯ই মার্চ, ২০২১ ইং

ডামুড্যায় স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা, স্বামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ

ডামুড্যায় স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা, স্বামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ

শরীয়তপুরের ডামুড্যা উপজেলায় পারিবারিক কলহের জের ধরে আমেনা বেগম (৩৬) নামের এক গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এই ঘটনায় স্বামী নজরুল ইসলাম মাদবর (৪০)কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড় ৯ টার দিকে উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ড দক্ষিণ পাড়া এ ঘটনা ঘটে। হত্যাকাণ্ডের পর ফেসবুকে ‘লাইভ’ ভিডিও ধারণ করেন। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ১৫০ শয্যার শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, ১৫ বছর আগে ইসলামপুর ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ড দক্ষিণ পাড়া গ্রামের মৃত হোসেন মাদবরের ছেলে নজরুল ইসলাম মাদবর সঙ্গে একই ইউনিয়নের গঙ্গাসকাঠি গ্রামের মৃত আজিদ আলী মাদবরের মেয়ে আমেনা বেগমের বিয়ে হয়। তাঁদের নয়ন মাদবর নামে বারো বছর বয়সী একটি ছেলে রয়েছে।

পরিবার সূত্র জানায়, নজরুল ইসলাম মাদবর মালয়েশিয়া থাকতেন। সেখানে রাজমিস্ত্রীর কাজ করতেন। সাদ থেকে পরে দুই পা ভেঙে যায়। সুস্থ হয়ে করোনার মহামারীর সময় ৭ মাস আগে দেশে চলে আসেন তিনি। স্ত্রী ও তিনি শরীয়তপুরের বাড়িতেই থাকতেন। আর ছেলে নয়ন ঢাকাতে এক মাদরাসায় পড়াশুনা করেন। তাই ঢাকা থাকেন।

স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যার পরমুহূর্তে ভিডিওতে নজরুল ইসলাম গান করেন। বলেন, “আমার খাইয়া, আমার পইড়া ডুব দিছে ভাই অন্যজনরে”।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, ঘটনার সময় নজরুল ইসলামের একতলা ভবনের কক্ষে তাঁর স্ত্রী ছাড়া আর কেউ ছিল না। শরীরের বিভিন্ন যায়গায় কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে আমেনাকে হত্যা করেন স্বামী নজরুল। তিনি ভিডিওতে তাঁর স্ত্রী আমেনা বেগমকে খাটের ওপর তোশক দিয়ে মোড়ানো অবস্থায় দেখান।

তখন নজরুল ইসলামের মা আনার কলি (৮০), ভাগনি সোহাদি আক্তার (২৫), ছোট ভাইর স্ত্রী আছিয়া বেগম (২৩) সহ প্রতিবেশিরা দরজা পিটাতে থাকে। কিন্তু সে দরজা খোলেননি। পরে বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে পুলিশ এসে দরজা খুলে নজরুল ইসলামকে গ্রেফতার করে। এবং আমেনা বেগমকে উদ্ধার করে।

আবু তাহের মাদবর, ফজলে মাদবরসহ এলাকাবাসীর অনেকেই বলেন, আমেনা খুব ভালো নারী ছিলেন। এই ধরনের জঘন্য ঘটনা কীভাবে ঘটানো যায়, তা বিশ্বাস করতেই কষ্ট হচ্ছে। অপরাধীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন তারা।

শরীয়তপুরের পুলিশ সুপার এস.এম আশরাফুজ্জামান বলেন, স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যার দায়ে নজরুল ইসলামকে গ্রেপ্তারের করা হয়েছে। লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে।