বৃহস্পতিবার, ২৯শে জুলাই, ২০২১ ইং, ১৪ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৮ই জিলহজ্জ, ১৪৪২ হিজরী
বৃহস্পতিবার, ২৯শে জুলাই, ২০২১ ইং

ভাঙনের মুখে ডামুড্যায় মুক্তিযোদ্ধার বাড়ি

ভাঙনের মুখে ডামুড্যায় মুক্তিযোদ্ধার বাড়ি

ডামুড্যা পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের পশ্চিম ঠেঙ্গার বাড়ি এলাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হাওলাদারের বাড়ি যেকোনো সময় ভেঙে পুকুরে পড়ে যেতে পারে। ডামুড্যায় রাস্তার পাশে পুকুর কেটে মাছ চাষ করায় পুকুরেই গিলে খাচ্ছে রাস্তা গুলো এমনটিই আশংকা করছেন স্থানীয় জনসাধারণ।

স্থানীয় সূত্রে খবর পেয়ে। সরজমিনে গিয়ে দেখা গেল যে,পশ্চিম ঠেঙ্গার বাড়ি মাদবর বাড়ির সামনের রাস্তাটি দীর্ঘ প্রায় দশ(১০) বছর ভাঙাচুরা অবস্থায় আছে। জনসাধারণ কোন রকমে পায়ে হেটে চলাচল করতে পারে। কিন্তু হঠাৎ করে রাস্তা সংলগ্ন বিশাল পুকুর সেচের কারণে, এখন সমস্ত রাস্তাটি পুকুরে পরে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। ইতিমধ্যে রাস্তাটির বেশর ভাগ অংশ পরে গেছে। আর একটু ভাঙলেই মুক্তি যোদ্ধা আনোয়ার হাওলাদারের বসত ঘরটিও ভেঙ্গে পুকুরে পরে যাবে।

মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হাওলাদার দৈনিক রুদ্রবার্তাকে বলেন, আমরা দেশ স্বাধীন করেছি, দেশ ও জাতির উন্নতির জন্য। এর প্রতিদান হিসেবে আমার বসত ঘর ভেঙে এখন পুকুরে পরার উপক্রম। আমি অতি দ্রুত আমার এ রাস্তা সহ আমার এলাকার সকল রাস্তা অতি দ্রুত মেরামতের দাবি জানাচ্ছি।

এ প্রসঙ্গে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর লোকমান হোসেন দৈনিক রুদ্রবার্তাকে বলেন, আমার এ পশ্চিম ঠেঙ্গার বাড়ি এলাকাটি দীর্ঘদিন যাবত অবহেলিত হয়ে আছে। আমি গত দশ (১০) বছর এনিয়ে তৎকালীন মেয়র মহোদয় কে অনেকবার অবহিত করেছি। তাতে কোন লাভ হয়নি। আমার এলাকার নামে বরাদ্দ হওয়া কাজ কেটে নিয়ে, অন্য এলাকায় দেয়া হয়েছিল। যার ফলে এ জনগুরুত্বপূর্ণ রাস্তাটি সংস্কারহীন ভাবে পরে আছে। তাছাড়া এ রাস্তা দিয়ে ডেলিভারি রোগী ছাড়াও অনেক প্রয়োজনী কাজ করতে হয়। এ ভাঙা রাস্তার জন্য রোগীদের কে খাটে উঠিয়ে কাঁধে করে নিতে হয়।আমি আমাদের সম্মানিত এমপি নাহিম রাজ্জাকের কাছে এবং আমার পৌর মেয়র রাজা ছৈয়ালের নিকট আবেদন করবো, আপনারা অতি দ্রুত এ রাস্তাটি মেরামতের ব্যবস্থা করবেন।

বিষয়টি নিয়ে কথা হয় ডামুড্যা পৌরসভার মেয়র রেজাউল করিম রাজা ছৈয়ালের সাথে, তিনি বলেন,আমি মাত্র তিন মাস হল ক্ষমতায় এসেছি। আমি আমার পৌরসভার সকল এলাকার সমস্যা গুলো ঘুরে,ঘুরে দেখছি। তবে পশ্চিম ঠেঙ্গার বাড়ি’র এ রাস্তাটি আমি দেখেছি। এর পাশা পাশি মুক্তি যোদ্ধা আনোয়ার হাওলাদারের বাড়ি রক্ষার জন্য যা যা করতে হয়,তা সকল কিছুই করবো। আপাতত সাময়িক ভাবে জনগনের চলাচলের জন্য মেরামত করে দিব।পরবর্তীতে বড় বাজেট করে স্থায়ী ভাবে মেরামত করব।