সোমবার, ৮ই আগস্ট, ২০২২ ইং, ২৪শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১০ই মুহাররম, ১৪৪৪ হিজরী
সোমবার, ৮ই আগস্ট, ২০২২ ইং

সারা রাত টোল প্লাজার এখানে গাড়ি নিয়ে অপেক্ষা করেছি। পদ্মা সেতু আমাদের উপহার

সারা রাত টোল প্লাজার এখানে গাড়ি নিয়ে অপেক্ষা করেছি। পদ্মা সেতু আমাদের উপহার

গাড়ির অতিরিক্ত চাপ থাকায় ২০ মিনিট আগেই ছাড়তে হয়েছে।

সারারাত অপেক্ষার প্রহর শেষে ভোর ৫টা ৪০ মিনিটে গাড়ি উঠলো পদ্মা সেতুতে। রাত ১০টার পর থেকেই শত শত গাড়ি এসে জড়ো হয় পদ্মা সেতুর শরীয়তপুরের জাজিরা প্রান্তে। সারা রাত অপেক্ষার প্রহর শেষ হয় ভোর ৫টা ৪০ মিনিটে।

সারা রাত অপেক্ষায় থাকা গাড়িগুলো যখন যাওয়ার সংকেত পান তখন বাঁধ ভাঙ্গা উচ্ছ্বাস প্রকাশ করতে দেখা যায় যাত্রীদের। তারা উল্লাসে ফেটে পড়ে একদৌড়ে গিয়ে হাজির হন টোল প্লাজায়। পদ্মা সেতু দিয়ে পাড় হওয়ার আশা পূরণ হতে যাওয়ায় তারা চিৎকার করে আনন্দ প্রকাশ করতে থাকেন।

ভোর ৫টা ৪০ মিনিটে প্রথম টোল দিয়ে টোল প্লাজা পার হয় (ঢাকা মেট্রো-গ ৪৩৬৬৯৫) একটি টয়টা প্রাইভেটকার। প্রথম গাড়ি নিয়ে টোল প্লাজা হতে পেরে গাড়ির মালিক শেখ মোহাম্মদ রবিউল আনন্দ প্রকাশ করে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর পরে টোল দিয়ে টোল প্লাজা পাড় হতে পেরে আমি অনেক আনন্দিত। আমি সবার আগে পদ্মা সেতু দিয়ে পাড় হওয়ার জন্য রাত ১০ টা থেকে জাজিরা প্রান্তে এসে অপেক্ষায় ছিলাম। আমার আশা পূরণ হওয়ায় আমি খুশি। আমি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানাই।

এরপর টোল দিয়ে মোটরসাইকেলনিয়ে টোল প্লাজা পাড় হন এক যুবক। টোল প্লাজা পাড় হতে পেরে তিনিও আনন্দে ফেটে পড়েন।

ইমাদ পরিবহন নামে একটি বাস রাত ১০ টায় খুলনা থেকে ছেড়ে আসেন। টাংগাইলের ঘাটাইল উপজেলার ২২ বছরের অভিজ্ঞ ড্রাইভার আব্দুল আজিজ যাত্রীবাহী বাস নিয়ে রাত দেড় টায় জাজিরা প্রান্তে পদ্মা সেতুর টোল প্লাজার কিছু দূরে এসে অবস্থান নেন। সিগনাল পেয়ে অন্যান্য গাড়ির সাথে তিনিও তার বাস নিয়ে টোল প্লাজায় সবার আগে গিয়ে পৌছান। বাস গাড়ি নিয়ে সবার আগে টোল দিয়ে টোল প্লাজা পার হতে পেরে আনন্দ প্রকাশ করেন আব্দুল আজিজ। তিনি বলেন, রাত ১০টায় খুলনা থেকে ছেড়ে এসেছি। সবার আগে আমি টোল দিয়ে টোল প্লাজা পাড় হতে পেরে আমি আনন্দিত। আগে ফেরিতে গাড়ি নিয়ে পার হতে অনেক ঝামেলা হতো। অনেক সময় লাগতো। এখন পদ্মা সেতু দিয়ে সহজে পাড় হতে পারবো। আমাদের কষ্ট কমবে। এজন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই।

জাফর উদ্দিন বলেন, (ঢাকা মেট্রো ঘ:২১-২১৮৩) আমার বাড়ি বরিশাল। আমি ঢাকায় চাকরি করি। আমি বরিশাল থেকে সন্ধ্যা রাতে ছেড়ে এসেছি। সারা রাত টোল প্লাজার এখানে গাড়ি নিয়ে অপেক্ষা করেছি। সবার আগে পদ্মা সেতু দিয়ে পাড় হওয়ার অনুভূতি অন্যরকম। পদ্মা সেতু আমাদের উপহার দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই।

বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষ তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. আবুল হোসেন বলেন, রাত ১০টা থেকে শত শত গাড়ি এসে ভিড়তে থাকে পদ্মা সেতুর জাজিরা প্রান্তে। টোল প্লাজা দিয়ে ভোর ৬টায় গাড়ি ছাড়ার কথা ছিলো। গাড়ির অতিরিক্ত চাপ থাকায় ২০ মিনিট আগেই ছাড়তে হয়েছে।


error: Content is protected !!