বৃহস্পতিবার, ২রা জুলাই, ২০২০ ইং, ১৮ই আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১১ই জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী
বৃহস্পতিবার, ২রা জুলাই, ২০২০ ইং

নড়িয়ায় জমিতে খেয়ে ফেলেছে রাস্তার মাটি! প্রতিকার চেয়ে অভিযোগ

নড়িয়ায় জমিতে খেয়ে ফেলেছে রাস্তার মাটি! প্রতিকার চেয়ে অভিযোগ

শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার ঘড়িষার ইউনিয়নের চর লাউলানি গ্রামে এলাকাবাসীর চলাচলের জন্য নির্মিত রাস্তার মাটি কেটে জমিতে ফেলে দখলের অভিযোগ উঠেছে এক প্রভাবশালীর বিরুদ্ধে।
অভিযোগের দুইদিন পেরিয়ে গেলেও এখনো কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি প্রশাসন। সোমবার (১১ নভেম্বর) রাস্তাটি পূনরুদ্ধারের জন্য নড়িয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন স্থানীয় এক ব্যক্তি। তবে ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে।
লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, নড়িয়া-ঘড়িষার-সুরেশ্বর সড়কের মেইন রোড হইতে চরলাউলানী গ্রামের নির্মিত রাস্তাটি দিয়ে ২০বছর ধরে মানুষের চলাচল করে আসছে। স্থানীয় লোকমান হাওলাদারের জমি শরিফ উল্যাহ নামে এক ব্যক্তি বর্গাচাষী হিসেবে জমিটি দখল করে রয়েছে। এমতবস্থায় শরিফ উল্যাহ ওই জমির সীমানার পাশের কাচা রাস্তাটি নষ্ট করে প্রতিনিয়ত মাটি কেটে জমিতে ফেলছে। ফলে জন সাধারনের চলাচলে চরম দূর্ভোগের সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয় কেউ প্রতিবাদ করলেও কোন প্রতিকার মিলছে না বলে অভিযোগ অনেকের। এছাড়াও রাস্তাটির উত্তর মাথায় জোরপূর্বক একটি কেজি স্কুল নির্মাণ করে দখল করে রাখার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।
অভিযোগকারী মতিউর রহমান সাগর বলেন, এই রাস্তাটি করার শুরু থেকেই এই শরিফ উল্লাহ বিরোধিতা করেছেন এবং তিনি চান না এখানে রাস্তা থাকুক। এর পুর্বেও এভাবে রাস্তার মাটি কাটার কারনে ইউনিয়ন পরিষদে অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার মিলেনি। ইতিমধ্যে তিনি রাস্তা দখল করে একটি কেজি স্কুলও নির্মাণ করেছেন। এতে করে মানুষ চলাচলে কষ্ট হচ্ছে।
তবে অভিযুক্ত শরিফ উল্যাহর সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।
এদিকে, অভিযোগের বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন নড়িয়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা জয়ন্তী রূপা রায়।