রবিবার, ১৭ই অক্টোবর, ২০২১ ইং, ১লা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১১ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরী
রবিবার, ১৭ই অক্টোবর, ২০২১ ইং

নড়িয়ায় জমি সংক্রান্ত বিরোধে ১৫ বছরের কিশোরীকে পিটিয়ে আহত

নড়িয়ায় জমি সংক্রান্ত বিরোধে ১৫ বছরের কিশোরীকে পিটিয়ে আহত

শরীয়তপুর নড়িয়া উপজেলা জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে লিমা আক্তার(১৫) নামে এক কিশোরীকে পিটিয়ে আহত করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন। মঙ্গলবার ৭ অক্টোবর সকাল ১০টার দিকে উপজেলার ফতেজঙ্গপুর ইউনিয়ন ৭নং ওয়ার্ড বাজন পাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহত ওই কিশোরীকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, ফতেজঙ্গপুর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের বাজন পাড়া গ্রামের মৃত ইমাম উদ্দিনের হাওলাদারের ছেলে সেলিম হাওলাদার-এর সাথে মৃত হযরত আলী হাওলাদারের ছেলে আনসার হালদার ও হাশেম হাওলাদারের ছেলে বিল্লাল হাওলাদার-এর সাথে দীর্ঘদিন যাবৎ পৈত্রিক সম্পত্তি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। সেলিম হাওলাদার জানান ঘটনার দিন মঙ্গলবার সকাল দশটার দিকে আমি গরু-বাছুর নিয়ে আনসার হাওলাদারের বাড়ির পাশের সরকারি রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় পূর্বপরিকল্পিতভাবে আমাকেও আমার পরিবারের লোকজনকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ আরম্ভ করে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে আনসার হাওলাদার ও বিল্লাল হাওলাদারসহ অপরিচিত আরো ৫-৭ জন সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোক বাড়ি থেকে ছেন দা, লোহার রড, বাঁশের লাঠি, নিয়ে এসে আমার উপর অতর্কিত ভাবে হামলা করে ঘুসি লাথি ও লোহার রড দিয়ে পিটাইয়া শরীরের বিভিন্ন স্থানে ব্যথাযুক্ত জখম করে। আমার ছেলে মিলন (১৪) আমাকে ছাড়াইতে গেলে ওকে এলোপাতাড়িভাবে কিল ঘুষি মারতে থাকে। এ সময় আমার স্ত্রী মুক্তা বেগম (৪০) ও আমার মেয়ে লিমা আক্তার (১৫) আমাদের কে ছাড়াইতে গেলে আমার স্ত্রী ও মেয়েকে ধাক্কা দিয়ে মাটিতে ফালাইয়া লোহার রড ও লাঠি দিয়ে এলোপাতাড়ি মারধর করে আমাদের জীবন শেষ করে ফেলার হুমকি দিয়ে চলে যায়। পরে আমাদের আশেপাশের লোকজন উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

এ ব্যাপারে নড়িয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অবনী শংকর কর বলেন, এ ব্যাপারে একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।