শনিবার, ১০ই ডিসেম্বর, ২০২২ ইং, ২৫শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৬ই জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরী
শনিবার, ১০ই ডিসেম্বর, ২০২২ ইং

প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পে কবুতরের বাসা

প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পে কবুতরের বাসা

আশ্রায়ন প্রকল্পের ঘর পাওয়া ১০ পরিবার পেল কবুতর ও কবুতরের বাসা শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার নশাসন ইউনিয়নের ছিটু বেপারীকান্দি।

বৃহস্পতিবার ১৭ নভেম্বর বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শরীয়তপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. পারভেজ হাসান এর উদ্বোধন করেন। সুবিধাভোগীদের কর্মসংস্থানের লক্ষে পর্যায়ক্রমে জেলা আশ্রায়ন প্রকল্পের সবাইকে কবুতর ও কবুতরের বাসা দেয়া হবে বলে জানান ডিসি।

ডিসি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর অধিন ঘর পাওয়া মানুষের কর্মসংস্থানের লক্ষে কবুতর ও কবুতরের বাসা বিতরণ করা হয়েছে। এদের আত্মকর্মসংস্থানের জন্য নানাবিদ পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। আমাদের কৃষি প্রণোদনাসহ যে কর্মসংস্থানের কাজ রয়েছে তাদের প্রথমে রাখতে চাই। এরা ঘর পেয়েছে আত্মবিশ্বাস পেয়েছে। ঘর হলো তাদের আত্মবিশ্বাসের যায়গা। তাদের যদি আত্মকর্মসংস্থানের আওতায় আনা যায়, তাহলে এরা কিন্তু যেগে উঠবে। সেই যায়গা থেকেই আমরা একটি নতুন উদ্যোগ নিয়েছি। তাই আশ্রয়ন প্রকল্পগুলোতে কবুতর দিচ্ছি । মায়েরা যেন কবুতর, মুরগী পালন করতে পারে।

তিনি বলেন, নারীর ক্ষমতায়নের কথাও কিন্ত প্রজেক্টে চিন্তা করা হয়েছে। মননীয় প্রধানমন্ত্রী যখন ঘরগুলো দিয়েছে তখন দলিলে স্বামী ও স্ত্রীর দুজনের নামেই দলিল করতে বলেছেন। এরা আমাদের পরিবারেরই অংশ। ঘর পাওয়ার পর তারা যেন নিজের পায়ে দাঁড়াতে পারে তাই এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

নশাসন ছিটু বেপারীকান্দি আশ্রায়ন প্রকল্পের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম ও সাধারণ সম্পাদক মমতাজ বেগম বলেন, আমাদের ঘর-জমি কিছুই ছিলনা। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের ঘর ও জমি দিয়েছেন। আজ আবার ডিসি স্যারে কবুতর ও কবুতরের বাসা দিয়েছেন। আমরা কবুতর পালন করে স্বাবলম্বী হতে চাই।

এসময় নড়িয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শেখ রাশেদুজ্জামান, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. পারভেজ, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মো. আহাদী হোসেন, নশাসন ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মো. আক্তার হোসেন শরীফ, নশাসন ইউপি চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন তালুকদার প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।


error: Content is protected !!