রবিবার, ৫ই ডিসেম্বর, ২০২১ ইং, ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১লা জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরী
রবিবার, ৫ই ডিসেম্বর, ২০২১ ইং
নির্বাচনী পরবর্তী সহিসংতা

কালকিনিতে বসতবাড়ি ও দোকানঘর ভাংচুর ॥ অন্তসত্তা নারীসহ আহত ১০

কালকিনিতে বসতবাড়ি ও দোকানঘর ভাংচুর ॥ অন্তসত্তা নারীসহ আহত ১০

মাদারীপুরের কালকিনি ও নবগঠিত ডাসার উপজেলার ইউপি নির্বাচনী পরবর্তী সহিংসতায় বসতবাড়ি ও দোকানঘর ভাংচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় দুই উপজেলায় অন্তসত্তা নারীসহ আহত হয়েছেন ১০ জন।

শুক্রবার সকালে কালকিনি উপজেলার সাহেবরামপুর, লক্ষিপুর ও ডাসার উপজেলার শশিকরে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের উদ্ধার করে কালকিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়রা জানায়, সকালে কালকিনি উপজেলার লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নে পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী গেন্দু কাজীর সমর্থকদের উপর রায়পুর এলাকায় হামলা চালানো হয়। এ সময় বেশ কয়েকটি বাড়িঘর ভাংচুর-লুটপাট করা হয়। বাঁধা দিতে এলে অন্তসত্তা গৃহবধুসহ আহত হয় ৫ জন। খবর পেয়ে পরিস্থিত নিয়ন্ত্রনে আনে পুলিশ। বিজয়ী প্রার্থী মৌসুমী হকের সমর্থকরা এ হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ ভুক্তভোগীদের। এদিকে ডাসার উপজেলার নবগ্রাম ইউনিয়নের শশিকরে পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী বিভূতি ভুষণ বাড়ৈর সমর্থকদের বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে বিজয়ী প্রার্থী দুলাল তালুকদারের সমর্থকরা। এ সময় আহত হয় ৫ জন।

অপরদিকে কালকিনি উপজেলার সাহেবরামপুর ইউনিয়নের পরাজিতক চেয়ারম্যান প্রার্থী কামরুল হাসান সেলিমের লোকজন বিজয়ী প্রার্থী মাহবুবুর রহিম মুরাদ সরদারের সমর্থকদের প্রায় ৩০টি বসত বাড়ি ও প্রায় ২০টি দোকার ঘর ভাংচুর করেন।
উল্লেখ্য, গতকাল (১১নভেম্বর) কালকিনি ও ডাসারের ১১ ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।