সোমবার, ১৫ই আগস্ট, ২০২২ ইং, ৩১শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৬ই মুহাররম, ১৪৪৪ হিজরী
সোমবার, ১৫ই আগস্ট, ২০২২ ইং

ভেদরগঞ্জ প্রশাসনের বরাত দিয়ে সরকারি গাছ কাঁটার অভিযোগ

ভেদরগঞ্জ প্রশাসনের বরাত দিয়ে সরকারি গাছ কাঁটার অভিযোগ

ভেদরগঞ্জ উপজেলার চরসেনসাস মাদবর কান্দি গ্রামে উপজেলা প্রকৌশল ও ঠিকাদারের বরাত দিয়ে সরকারি রাস্তার গাছ কাঁটার অভিযোগ উঠেছে একটি প্রভাবশালী মহলের বিরুদ্ধে। ১২ জুলাই শুক্রবার থেকে গাছ কাঁটা শুরু হলে ইউনিয়ন পরিষদ ও সহকারী ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা গাছ কাঁটায় বাঁধা প্রদান করেন। সেই থেকে কেঁটে ফেলা গাছ অরক্ষিত অবস্থায় রাস্তায় পড়ে আছে।
সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, শরীয়তপুর জেলার ভেদরগঞ্জ উপজেলার চরসেনসাস ইউনিয়নের মাদবরকান্দি গ্রামের সোবাহান মাদবর সরকারি রাস্তার দুইপাশে থাকা প্রায় ১০টি মূল্যবান মেহগনি গাছ কেঁটে ফেলেছে। সংবাদ পেয়ে চরসেনসাস ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জিতু মিয়া বেপারী ও ইউনিয়ন ভূমি অফিসের পক্ষ থেকে গাছ কাঁটায় বাঁধা প্রদান করে। ইতোমধ্যে প্রায় ১০টি গাছ কাঁটা পড়ে যায়।
গাছ কাঁটার বিষয়ে অভিযুক্ত সোবাহান মাদবর বলেন, উপজেলা প্রকৌশলী ও ঠিকাদার পরিচয়ে দুইজন লোক এসে বলে রাস্তার দুই পাশে যাদের গাছ রয়েছে তা ৪ দিনের মধ্যে কেটে নিবেন। অন্যথায় গাছে লাল কালির দাগ পড়ে যাবে। তাই আমার জমির মাথার গাছ কাঁটা শুরু করি। পরে ইউনিয়ন পরিষদ ও প্রশাসনের কাছ থেকে বাঁধা আসায় গাছ কাঁটা বন্ধ রেখেছি। গাছ কাটতে নির্দেশ প্রদানকারী প্রকৌশলী ও ঠিকাদার কোথা থেকে এসেছে বা তাদের নাম বলতে পারেনি সোবাহান মাদবর।
উপজেলা প্রকৌশল অফিসে খোঁজ খবর নিয়ে জানা গেছে উপজেলা প্রকৌশল ও ঠিকাদরদের পক্ষ থেকে এমন কোন ঘোষণা প্রদান করা হয়নি। এমন গুজব ছোবাহান মাদবর বাদে অন্য কেউ শুনেনি বলে এলাকাবাসী দাবী করেছে। এ বিষয়ে চরসেনসাস ইউপি চেয়ারম্যান জিতু মিয়া বেপারী বলেন, এটি ইউনিয়ন পরিষদের রাস্তা। ওই রাস্তা কার্পেটিং বা মেরামতের কাজ হলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ আমাকে অবগত করবে। তেমন কোন সংবাদ আমি পাইনি তাই গাছ কাঁটা বন্ধ রাখতে বলেছি। উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে বিষয়টি অবগত করে সিদ্ধান্ত দেয়া হবে। এর পূর্বেও সোবাহান মাদবর সরকারি রাস্তার গাছ কেঁটে নিয়েছে। স্থানীয় বাবুল মাদবরের স্ত্রী এসে অভিযোগ করেছিল কেটে ফেলা গাছ নাকি বাবুল মাদবর লাগিয়েছিল।


error: Content is protected !!