শুক্রবার, ১২ই আগস্ট, ২০২২ ইং, ২৮শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৪ই মুহাররম, ১৪৪৪ হিজরী
শুক্রবার, ১২ই আগস্ট, ২০২২ ইং

জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষ্যে শরীয়তপুর গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে মতবিনিময় সভা

জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষ্যে শরীয়তপুর গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে মতবিনিময় সভা

১৭ জুলাই বুধবার জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ-২০১৯ উপলক্ষ্যে শরীয়তপুর সদর উপজেলা মৎস্য অধিদপ্তর, শরীয়তপুর কার্যালয়ে শরীয়তপুর গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।
প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও ১৭ জুলাই হতে ২৩ জুলাই জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ-২০১৯ উদযাপিত হতে যাচ্ছে। সপ্তাহব্যাপী এ বছরের প্রতিপাদ্য বিষয় হচ্ছে “মৎস্য সেক্টরের সমৃদ্ধি, সুনীল অর্থনীতির অগ্রগতি।”
বাংলাদেশের অর্থনৈতিক সমীক্ষা-২০১৮ অনুসারে মোট দেশজ উৎপাদনের ৩.৫৭% মৎস্যের অবদান রয়েছে। দেশের মোট কৃষি আয়ের ২৫.৩০ শতাংশ আসে মৎস্য থেকে। মৎস্য সম্পদের অগ্রগতি আরও কিভাবে হতে পারে? সেজন্য গণমাধ্যম কর্মীদের ভূমিকা অনস্বীকার্য। গণমাধ্যম কর্মীদের সংবাদের উপর ভিত্তি করে মৎস্য নিধন অনেকাংশে সফল হচ্ছে। যার ধারাবাহিকতায় সারাদেশের ন্যায় শরীয়তপুর জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত শরীয়তপুর সদর উপজেলার মৎস্য কর্মকর্তা পলাশ হালদার সাংবাদিকদের নিয়ে এ মতবিনিময় সভার আয়োজন করেন। এবং তিনি সাংবাদিকদের সামনে শরীয়তপুরের মৎস্য বিষয়ক তথ্যাদি তুলে ধরেন। যেমন- শরীয়তপুর জেলায় পুকুর আছে ১৫১৮২টি, খাস পুকুর আছে ১৫৪টি, খাল আছে ৮০টি, নদী আছে ১৩টি ও প্লাবন ভূমির সংখ্যা ২২৫টি। এগুলো থেকে বছরে মাছের উৎপাদন হয় ২৬ হাজার ৭২৫ মে.টন। যেখানে বছরে চাহিদা মাত্র ২০ হাজার ১৪৮ মে.টন। এছাড়াও তিনি মৎস্য উন্নয়ন, মৎস্য আইন, মৎস্য সংরক্ষণ ও ইলিশ সংরক্ষণ বিষয়েও মতবিনিময় করেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, শরীয়তপুর জেলা উপসহকারী পরিচালক ইকবাল হোসেন ও শরীয়তপুর সদর উপজেলা সম্প্রসারণ কর্মকর্তা আদনান হোসেন সাকিব সহ মতবিনিময়কালে সাংবাদিকবৃন্দে উপস্থিত ছিলেন।


error: Content is protected !!