বৃহস্পতিবার, ২রা এপ্রিল, ২০২০ ইং, ১৯শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
আজ বৃহস্পতিবার | ২রা এপ্রিল, ২০২০ ইং

শিক্ষকের অনৈতিক কাজের প্রতিবাদে উত্তাল শরীয়তপুর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট

রুদ্রবার্তা প্রতিবেদক

রবিবার, ২৮ জুলাই ২০১৯ | ৭:৫১ অপরাহ্ণ | 15461Views

শিক্ষকের অনৈতিক কাজের প্রতিবাদে উত্তাল শরীয়তপুর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট

শরীয়তপুর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের কম্পিউটার টেকনোলজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান শিক্ষক আবু সায়েমের অনৈতিক কার্যকলাপের প্রতিবাদে ও তার অপসারণ দাবিতে বিক্ষোভ করেছে বিভাগীয় শিক্ষার্থীরা।
রোববার (২৮ জুলাই) দুপুরে প্রতিষ্ঠানের ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীরা এই বিক্ষোভ করেন। এর আগে ওই শিক্ষকের অনৈতিক কর্মকা-ের প্রতিবাদে ও তার অপসারণ দাবিতে অধ্যক্ষের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে বিভাগের সকল পর্বের শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, বিভাগীয় প্রধান শিক্ষক আবু সায়েম প্রতিষ্ঠানে যোগদানের পর থেকে বিভিন্ন সময় ছাত্রীদের কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছেন। একা একা ছাত্রীদের তার বাসায় যেতে বলেন। তার জন্য রান্না করে প্রতিদিন খাবার নিয়ে আসতে বলেন। ছাত্রীদের নিয়ে একা একা ঘুরতে যাওয়ার প্রস্তাব দেন। মেয়েদেরকে রেস্টুরেন্টে পার্সোনাললি দেখা করতে বলেন। মেয়েদের মুখ দেখার জন্য নেকাপ খুলতে বলেন। বাসায় দাওয়াত দিয়ে খাওয়াতে বলেন। বিভিন্ন সময় মেয়েদের মোবাইল নাম্বার নিয়েছেন শিক্ষক সায়েম। তার কাছে কোন তথ্য জানতে চাইলে সে তার রুমে যেতে বলেন। তার এ সকল অনেতিক কার্যকলাপের কথা কাউকে বললে ড্রপ আউটের হুমকি দেন শিক্ষম সায়েম। আর তার কুপ্রস্তাবে রাজি হলে পরীক্ষায় এ প্লাস দিয়ে দেবেন। বোর্ডের সাথে নাকি তার সম্পর্ক রয়েছে। সে ইচ্ছে করলেই যে কারো রেজিস্ট্রেশন বাতিল করতে পারে বলে হুমকি দেন।
তাছাড়া চলমান ভাইভা পরীক্ষায় প্রতি বিষয়ে অনৈতিভাবে প্রত্যেক ছাত্রছাত্রীর কাছ থেকে ১ হাজার করে টাকা দাবি করেন শিক্ষক সায়েম। তার কথামতো টাকা না দিলে ৫ বছরের জন্য ড্রপ দিয়ে দেবেন বলে ভয় দেখান। আর টাকা দিলে পাশ করিয়ে দিবেন বলে কথা দেন।

শিক্ষার্থী জান্নানত, সাথি, সুরভি, রিমা সহ অনেকে বলেন, বিভাগীয় প্রধান শিক্ষক অনেক সময় আমাদের কুপ্রস্তাব দিয়ে থাকেন। আমাদের একা একা ঘুরতে ও রেস্টুরেন্টে নিয়ে যেতে চান। অনেক মেয়েদের মোবাইল নাম্বার নিয়েছে শিক্ষক সায়েম। শিক্ষকের অনৈতিক প্রস্তাবের প্রতিবাদে আমরা যদি বলি আপনি তো আমাদের বাবার মতো, আপনি আমাদের দিকে কুদৃষ্টিতে তাকান কেনো। তখন সে বলে আমি কিসের তোমাদের বাবার মতো? আমি তো ব্যাচেলর। তার এসময় অনৈতিক কথাবার্তা কাউকে বলে ফেল করানোর হুমকি দেয়। আর তার কুপ্রস্তাবে রাজি হলে আমাদের পাশ করিয়ে দিবে বলেন। আমরা এই শিক্ষকের বিচার দাবি করছি।

ছাত্র সেকেন্দার মল্লিক, আব্দুল আলিম, রতন মন্ডল, আবুল কালাম সহ অনেকে বলেন, শিক্ষক আবু সায়েম বিভিন্ন সময় ছাত্রীদের অনৈতিক কুপ্রস্তাব দেন। এবং প্যাকটিক্যাল পরীক্ষায় প্রত্যেকের কাছ থেকে অনৈতিক ভাবে ১ হাজার টাকা করে দাবি করেন। তার কথা না শুনলে আমাদের ফেল করানোর হুমকি দেন। আমরা এই শিক্ষকের দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবি করছি এবং অনতিবিলম্বে এই শিক্ষকের অপসারণ দাবি করছি। দাবি না মানা পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলবে।

অধ্যক্ষ আক্তারুজ্জামান তালুকদার বলেন, কম্পিউটার বিভাগের প্রধান শিক্ষক আবু সায়েমের বিরুদ্ধে একাধিক ছাত্র-ছাত্রী আমার কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। আজকে তারা ওই শিক্ষকের অপসারণ দাবিতে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ করেছে। বিষয়টি পুলিশ প্রশাসন সহ উদ্ধতন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছি। শীঘ্রই এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত শিক্ষক আবু সায়েম বলেন, আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ সত্য নয়। হঠাৎ করে কি কারণে শিক্ষার্থী আমার বিরুদ্ধে অধ্যক্ষের কাছে অভিযোগ ও বিক্ষোভ করছে তা আমি বুঝতেছিনা। এর পেছনে কোন ষড়যন্ত্র থাকতে পারে।


-Advertisement-
সর্বশেষ  
জনপ্রিয়  

ফেইসবুক পাতা

-Advertisement-
-Advertisement-
error: Content is protected !!