Sunday 21st July 2024
Sunday 21st July 2024

Notice: Undefined index: top-menu-onoff-sm in /home/hongkarc/rudrabarta.net/wp-content/themes/newsuncode/lib/part/top-part.php on line 67

ব্র্যাকের কর্মসূচিকে দারিদ্র্য নিরসনে গুরুত্বপূর্ণ উদ্যোগ বলে অভিহিত করলেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট

ব্র্যাকের কর্মসূচিকে দারিদ্র্য নিরসনে গুরুত্বপূর্ণ উদ্যোগ বলে অভিহিত করলেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট

১৭ অক্টোবর বৃহস্পতিবার আন্তর্জাতিক দারিদ্র্য বিমোচন দিবস উপলক্ষ্যে বিশ্বের বৃহত্তম বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাক বাংলাদেশসহ আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অক্টোবর মাসব্যাপী নানা কার্যক্রম হাতে নিয়েছে। এরই অংশ হিসেবে বুধবার (১৬ অক্টোবর) শরীয়তপুর জেলায় ব্র্যাকের আলট্রা-পুওর গ্র্যাজুয়েশন প্রোগ্রামের কার্যক্রম পরিদর্শন করেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবেদা আফসারী। তিনি ব্র্যাকের উল্লেখিত কর্মসূচির অংশগ্রহণকারীদের বাড়ি পরিদর্শন করেন এবং তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন। এ সময় তাঁর সঙ্গে আরও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহাবুর রহমান শেখ, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আমীর হামজা, জেলা সমাজ সেবা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মো: কামাল হোসেন, জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা: সুবোধ কুমার দাস, চিতলিয়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম হাওলাদার, জেলা স্বাস্থ্য শিক্ষা অফিসার মো: মাহাবুবুর রহমান, উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার, চিতলিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক প্রমুখ। দেশ জুড়ে অতি দারিদ্র নিরসনে ব্র্যাকের ভূমিকার প্রশংসা করে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট বলেন, ‘স্বাধীনতার পর থেকে সরকারের পাশাপাশি ব্র্যাকের নানাবিধ উন্নয়ন কর্মকান্ড জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে প্রশংসনীয় ভূমিকা পালন করছে এবং দেশের দারিদ্র বিমোচনে ব্র্যাকের আলট্রা-পুওর গ্রাজ্যুয়েশন কর্মসূচি অভূতপূর্ব অবদান রাখছে’।
জাতিসংঘ এ বছরের আন্তর্জাতিক দারিদ্র্য বিমোচন দিবসের মূল প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করেছে ‘পরিবার, শিশু ও সমাজের ক্ষমতায়ন, সকলের অংশগ্রহণে দারিদ্র বিমোচন’ (অপঃরহম ঃড়মবঃযবৎ ঃড় বসঢ়ড়বিৎ পযরষফৎবহ, ঃযবরৎ ভধসরষরবং ধহফ পড়সসঁহরঃরবং ঃড় বহফ ঢ়ড়াবৎঃু)। দিবসটিকে কেন্দ্র করে ব্র্যাকের আলট্রা-পুওর গ্র্যাজুয়েশন প্রোগ্রাম শরীয়তপুর জেলাসহ বর্তমানে কর্মসূচিটি চলমান রয়েছে এরকম সকল জেলার (৪৩টি) জেলা প্রশাসনের সহায়তায় সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসকের মাঠ কার্যক্রম পরিদর্শন আয়োজন করেছে।
ব্র্যাকের পক্ষ থেকে জানানো হয়, তাদের এই উদ্যোগের লক্ষ্য হচ্ছে, সরকারের মাঠ পর্যায়ে তথা জেলা প্রশাসকের আলট্রা-পুওর গ্র্যাজুয়েশন প্রোগ্রাম বিষয়ে সম্যক ধারণা দেওয়া এবং জেলা পর্যায়ে সংশ্লিষ্ট সরকারি প্রতিষ্ঠান সমূহের কাছে কর্মসূচিটির অভিজ্ঞতালব্ধ জ্ঞান তুলে ধরা। যা ভবিষ্যতে সরকারের সঙ্গে সমন্বিতভাবে কাজ করার পরিবেশ তৈরিতে অবদান রাখবে। একই সঙ্গে বাংলাদেশ থেকে অতি দারিদ্র দূরীকরণে আলট্রা-পুওর গ্র্যাজুয়েশন প্রোগ্রাম কীভাবে অবদান রাখতে পারে, সে বিষয়ে জেলা প্রশাসক এবং অন্যান্য সরকারি কর্মকর্তাদের পরামর্শ গ্রহণ করা, যা ব্র্যাকের ভবিষ্যত করণীয় নির্ধারণে সহায়ক হবে।
উল্লেখ্য যে, শরীয়তপুর জেলায় ২০১২ সালে আলট্রা-পুওর গ্র্যাজুয়েশন প্রোগ্রামের কার্যক্রম শুরু হয়। ২০১৮ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত জেলাটির ১৩ হাজার ৫৮ টি অতি দরিদ্র পরিবার ব্র্যাকের আলট্রা-পুওর গ্র্যাজুয়েশন প্রোগ্রামের আওতায় এসেছে। ২০১৯ সালে শরীয়তপুর জেলায় এই কর্মসূচিটিতে অংশ নিচ্ছে ৫টি উপজেলার ১০০০ টি অতি দরিদ্র পরিবার। ২০০২ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশের ৪৭ টি জেলার বিশ লক্ষের বেশি অতি দরিদ্র পরিবার আলট্রা-পুওর গ্র্যাজুয়েশন প্রোগ্রামের আওতায় এসেছেন যাদের ৯৫% কর্মসূচি শেষ হয়ে যাওয়ার পর দীর্ঘমেয়াদেও তাদের আর্থসামাজিক উন্নয়নের ধারা বজায় রাখতে সক্ষম হয়েছে।