বৃহস্পতিবার, ১৬ই জুলাই, ২০২০ ইং, ১লা শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৪শে জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী
বৃহস্পতিবার, ১৬ই জুলাই, ২০২০ ইং

শরীয়তপুরে পুলিশ সদস্যসহ চারজন করোনা পজেটিভ

শরীয়তপুরে পুলিশ সদস্যসহ চারজন করোনা পজেটিভ
শরীয়তপুরে পুলিশ সদস্যসহ চারজন করোনা পজেটিভ

শরীয়তপুরে নতুন করে একজন পুলিশ সদস্যসহ চারজন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্তরা হলেন সদর উপজেলায় এক নারী পুলিশ সদস্য, রুদ্রকর দুই জন পুরুষ ও ভেদরগঞ্জ উপজেলার সখিপুর একজন নারী।

এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৭১ জনে দাঁড়াল। এই প্রথম শরীয়তপুরে একজন পুলিশ সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তিনি সম্প্রতি গাজীপুর থেকে শরীয়তপুর সদরের ডোমসারে নিজ বাড়িতে ফিরেছেন। তিনি গাজীপুরে পুলিশে চাকরি করেন

এদিকে, শরীয়তপুরে ২২ করোনা রোগী সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন। রবিবার (১৭ মে) বিকেলে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ।

শরীয়তপুর সিভিল সার্জন কার্যালয়ের জেলা করোনা কন্ট্রোল রুমের সমন্বয়ক ডা. আবদুর রশিদ বলেন, জেলার ৭১ জন করোনা আক্রান্তদের মধ্য থেকে স্বাস্থ্য বিভাগের পরিচর্যায় চিকিৎসাপ্রাপ্ত ২২ জন সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে গেছেন। এর মধ্যে সদর উপজেলার ডোমসার ইউনিয়নে নারী পুলিশ সদস্য। আর একই উপজেলার রুদ্রকর ইউনিয়নের ২ জন পুরুষ। তারা সম্প্রতি ঢাকা থেকে ফিরেছেন এবং ভেদরগঞ্জ উপজেলার সখিপুর থানার সখিপুর ইউনিয়নে একজন নারী । তিনি করোনায় আক্রান্ত রোগীর স্ত্রী।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘন্টায় জেলায় এক হাজার ৮৩৫ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এক হাজার ৬৮১ জনের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট হাতে পেয়েছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। জেলায় করোনায় আক্রান্ত মোট ৭১ জন। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে জেলায় ২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডা. মুনীর আহমেদ খান বলেন, ওই নারী পুলিশ সদস্য গাজীপুরে চাকরি করেন। সম্প্রতি করোনা উপসর্গ নিয়ে গাজীপুর থেকে শরীয়তপুর সদর উপজেলার ডোমসার নিজ বাড়ি ফিরেছেন। ঠান্ডাজ্বর, সর্দি নিয়ে গত ১২ মে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসলে তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরেরদিন নমুনা পরীক্ষার জন্য আইইডিসিআরে পাঠানো হয়। আজ তার করোনা ফলাফল পজেটিভ আসে।

গত ৪ এপ্রিল করোনায় আক্রান্ত শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার ৯০ বছরের এক বৃদ্ধ ঢাকার কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। গত ২৬ এপ্রিল করোনায় আক্রান্ত ৪৫ বছরের এক ব্যক্তি ডামুড্যা পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডে নিজ বাড়িতে মারা যান।