শুক্রবার, ২৭শে নভেম্বর, ২০২০ ইং, ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১১ই রবিউস-সানি, ১৪৪২ হিজরী
শুক্রবার, ২৭শে নভেম্বর, ২০২০ ইং
আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠণের আয়োজনে

জাতীয় জেল হত্যা দিবস শরীয়তপুরে ইকবাল হোসেন অপু এমপি

জাতীয় জেল হত্যা দিবস শরীয়তপুরে ইকবাল হোসেন অপু এমপি

আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের মধ্য দিয়ে শরীয়তপুরে পালিত হয়েছে জাতীয় জেল হত্যা দিবস। মঙ্গলবার ০৩ নভেম্বর বিকেল ৪ টার দিকে জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে এই আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ছাবেদুর রহমান খোকা সিকদারের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন, শরীয়তপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য ইকবাল হোসেন অপু। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, ঘাতকের দল ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেই ক্ষান্ত হয়নি, তারা ৩রা নভেম্বর সৈয়দ নজরুল ইসলাম, তাজউদ্দিন আহম্মেদ, ক্যাপ্টেন মুনসুর আলীসহ চার নেতাকে জেলখানার ভিতরে নৃশংস হত্যাকান্ড ঘটিয়ে ইতিহাসের কালো অধ্যায় রচনা করেছিল। আজও সেই ঘাতকের দল বসে নাই। তারা বিভিন্নভাবে আওয়ামীলীগকে নিশ্চিন্ন করে দেওয়ার জন্য ষড়যন্ত্র করছে। এ ষড়যন্ত্র মোকাবেলায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমাদের সকলকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

জেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান উজ্জলের সঞ্চালনায় অন্যান্যের মধ্যে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অনল কুমার দে, আওয়ামীলীগ জেলা সহ-সভাপতি ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল হাসেম তপাদার, আওয়ামীলীগ জেলা সহ-সভাপতি ও গোসাইরহাট উপজেলা চেয়ারম্যান ফজলুল হক ঢালী, জেলা আওয়ামীলীগ সদস্য ও জিপি এডভোকেট আলমগীর হোসেন মুন্সী, জেলা আওয়ামীলীগ সদস্য অধ্যক্ষ দেলোয়ার হোসেন তালুকদার, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি এডভোকেট জাহাঙ্গীর হোসেন, পৌরসভা আওয়ামীলীগের সভাপতি এম এম জাহাঙ্গীর মৃধা, সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও বাস মালিক সমিতির জেলা সভাপতি ফারুক আহমেদ তালুকদার, সদর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ছামিনা ইয়াসমিন, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ফাহাদ হোসেন তপু মিয়া, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক তাইজুল ইসলাম সরকারসহ আওয়ামীলীগ ও এর অঙ্গ সংগঠণের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন।

আলোচনা সভার শুরুতে জাতীয় চার নেতার স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। পরে তাদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।