মঙ্গলবার, ২০শে এপ্রিল, ২০২১ ইং, ৭ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৮ই রমজান, ১৪৪২ হিজরী
মঙ্গলবার, ২০শে এপ্রিল, ২০২১ ইং

দাওরায়ে হাদিস (মাস্টার্স) পরীক্ষায় তৃতীয় হলেন শরীয়তপুরের সাওদা

দাওরায়ে হাদিস (মাস্টার্স) পরীক্ষায় তৃতীয় হলেন শরীয়তপুরের সাওদা

আল হাইয়্যাতুল উলিয়ার দাওরায়ে হাদিস (মাস্টার্স) পরীক্ষায় বাংলাদেশে মেধা তালিকায় তৃতীয় স্থান অধিকার করেছেন শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলার বেগম লুৎফুন্নেছা মহিলা মাদরাসার শিক্ষার্থী সাওদা আক্তার।

এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে উপজেলার মনুয়া বেগম লুৎফুন্নেছা মহিলা মাদরাসা প্রাঙ্গণে সাওদাকে সংবর্ধনা ও ১৩তম তাকমিল জামাতের বিদায়ী ছাত্রীদের খতমে বুখারী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে সাওদার মেঝ ভাই হাফেজ মাওলানা আবু বকর তার সংবর্ধনা ক্রেস্ট গ্রহণ করেন।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বেগম লুৎফুন্নেছা মহিলা মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আলহাজ্ব আজিজুল হক মল্লিককের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পদ্মা সেতুর বাস্তবায়ন পরিষদের সভাপতি, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছাবেদুর রহমান খোকা সিকদার। এ সময় প্রতিষ্ঠানটির প্রতিষ্ঠাতা বিশিষ্ট সমাজসেবক শিক্ষা অনুরাগী আলহাজ্ব আজিজুল হক মল্লিক, ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটির সাবেক সভাপতি রফিকুল ইসলাম আজাদ, ভেদরগঞ্জ পৌরসভার সাবেক মেয়র আব্দুল মান্নান হাওলাদার, ধানকাঠি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক পিন্টু, ভেদরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান লিটন মোল্যা, সদস্য আলী আকবর দপ্তরী, মাদরাসার সহসভাপতি রাসুরুল হক মল্লিক, সাধারণ সম্পাদক জহিরুল হক (মাসুদ) মল্লিক, শাইখুল হাদিস মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস তালুকদার, মুহতামিম আলহাজ্ব মাওলানা রেজাউল করিম, মুহাদ্দিস মাওলানা উবাইদুল হক প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান মেহমান হিসেবে খতমে বাখারী ও দোয়া পরিচালনা করেন গাজীপুর টঙ্গীর দারুল উলূম মাদরাসার মুহতামিম ও সাইখুল হাদিস আল্লামা মুফতি মাসউদুল করিম।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, আমরা খুবই গর্বিত। কারণ সাওদা আক্তার আল হাইয়্যাতুল উলিয়ার দাওরায়ে হাদিস (মাস্টার্স) পরীক্ষায় বাংলাদেশে মেধা তালিকায় তৃতীয় স্থান অধিকার করেছেন।
এটা শুধু এই মাদরাসার গৌরব নয়, শরীয়তপুর জেলার গৌরব। তাই আপনার সন্তানদের মাদরাসায় পড়ান, দ্বীনি শিক্ষায় শিক্ষিত করুন।

নড়িয়া উপজেলা ভোজেশ্বর ইউনিয়নের মশুরা গ্রামের বিএম সেকেন্দার আলীর বড় মেয়ে সাওদা আক্তার। তারা পাঁচ ভাই, চার বোন। সাওদার বাবা ফতেজঙ্গপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক।

জানা যায়, গত ২০২০ সালের (১৯ ডিসেম্বর) শনিবার আল-হাইআতুল উলয়া লিল-জামি‘আতিল কওমিয়া বাংলাদেশের স্থায়ী কমিটির সভায় এ ফলাফল অনুমোদন করেন। গড় পাসের হার ছিল ৭২.৬৫। ছাত্রদের পাশের হার ৮২.১০ আর ছাত্রীদের পাশের হার ৫৭.২১।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের ২০১৮ সনের ৪৮ নং আইনে কওমী মাদরাসার দাওরায়ে হাদীসের সনদকে মাস্টার্স (ইসলামিক স্টাডিজ এবং আরবি) এর সমমান প্রদান করা হয়।