রবিবার, ১৭ই অক্টোবর, ২০২১ ইং, ১লা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১১ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরী
রবিবার, ১৭ই অক্টোবর, ২০২১ ইং

প্রধানমন্ত্রী’র ছবি সম্বলিত সাইন বোর্ড ব্যবহার করে সড়ক দখল 

প্রধানমন্ত্রী’র ছবি সম্বলিত সাইন বোর্ড ব্যবহার করে সড়ক দখল 

 

শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জে একটি ইটভাটার নিজস্ব রাস্তা বন্ধ করে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে।রাস্তা দখল করে বৃক্ষ রোপনের নামে প্রধানমন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ সদস্যের ছবি সম্বলিত সাইন বোর্ড টানিয়ে দিয়েছে তারা। এতে এ শিল্প প্রতিষ্ঠানটি বন্ধের উপক্রম হয়েছে। বেকার হতে বসেছে পাঁচ শতাধিক শ্রমজীবী মানুষ। রোববার দুপুরে ভেরদগঞ্জ উপজেলার রামভদ্রপুর ইউনিয়নের মহিষকান্দি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

 

অভিযোগ সুত্রে জানাযায়, রামভদ্রপুর ইউনিয়নের মহিষকান্দি গ্রামে ২০১৭ সনে  স্থানীয় খোকন দালালগংদের কাছ থেকে জমি ভাড়া নিয়ে নিউ বিসমিল্লাহ ব্রিক্স নামে একটি ইটভাটা কার্যক্রম শুরু করে ভাটা ব্যবসায়ী জসিম উদ্দিন মাদবর গংরা। ভাটা শুরুর পর থেকেই স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা খোকন দালালসহ একটি প্রভাবশালী মহল ভাটায় চাঁদা দাবী করে আসছিল।ভাটার মালিরা চাঁদা না দিলে গত ০১ জানুয়ারী ২০২১ইং তারিখে ভাটার মালিক কামাল মাদবর ও ভাটার ম্যানেজার চাঁনমিয়া দালাল সখিপুর থেকে ভাটার টাকা কালেকশন করে আসার পথে খোকান দালাল গংরা তাদের পথ রোধ করে। সে সময় তাদের কুপিয়ে এবং সাথে থাকা টাকা নিয়ে যায় খোকান দালালের সাথে থাকা সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় গত ০১ জানুয়ারী ২০২১ইং ইং তারিখে কামাল মাদবর বাদী হয়ে ভেদরগঞ্জ থানায় আট জনের নাম উল্লেখ করে একটি অভিযোগ দায়ের করেন। পরে আবারও ১৮/ ০১/ ২০২১ ইং তারিখে নিউ বিসমিল্লাহ্ বিক্সসের সামনে এসে খোকান দালাল গংরা তাদের জমির লীজের অতিরিক্ত আরও ১০ লক্ষ টাকা চাঁদাদাবি করে। যদি তাদের চাঁদা দেওয়া না হয় তাহলে ভাটা চালাতে দেওয়া হবে না বলে হুমকি দেন তারা। চাঁদা দিতে রাজি না হলেও, তখন প্রায় ১০ দিন ভেড়া দিয়ে ইট ভাটার রাস্তার আটকিয়ে রাখা হয়। এতে ভাটার প্রায় ৩০ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ হয় বলে দাবি করেছেন মামলার বাদী ইট ভাটার মালিক কামাল মাদবর। এ ঘটনায় ভেদরগঞ্জ সিনিয়র জুডিসিয়াল আমলী আদালতে ০৫ মার্চ ২০২১ ইং তারিখে একটি ক্ষতিপূরণ ও চাঁদাবাজি মামলা দায়ের করা হয়। এ মামলায় খোকন দালালের ছোটভাই আরিফ দালাল ও ফারুক দালালকে জেল হাজতে প্রেরণ করে আদালত। এতে তারা আরও ক্ষীপ্ত হয়ে যান। গত রোববার বৃক্ষরোপণের নাম করে খোকন দালাল গংরা ইট ভাটার রাস্তায় কলাগাছ ও কাঠ গাছ লাগায়। এর সাথে ভাটার পাশ্ববর্তী বাসিন্দা আব্দুল হাই মোল্যার জায়গায় দখল করে ইট ভাটার রাস্তার সামনে একটি টিনের ঘর নির্মাণ করে  টিটু দালাল।এ সা অপকর্ম বৈধ করতে প্রধানমন্ত্রীর ও স্থানীয় সংসদ সদস্য নাহিম রাজ্জাকের ছবি সম্বলিত সাইনবোর্ড সাটানো হয়েছে দখল করার রাস্তার সামনে।

 

ইটভাটা মালিক জসিম মাদবর জানান, রামভদ্রপুর ইউনিয়নের মহিষকান্দি গ্রামে ২০১৭ সনে  স্থানীয় খোকন দালালগংদের কাছ থেকে জমি ভাড়া নিয়ে নিউ বিসমিল্লাহ ব্রিক্স নামে আমরা একটি ইটভাটা কার্যক্রম শুরু করি। ভাটা শুরুর পর থেকেই স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা খোকন দালালসহ একটি প্রভাবশালী মহল ভাটায় চাঁদা দাবী করে আসছিল। চাঁদা না দেওয়াতে গতকাল আমাদের ইট ভাটার রাস্তায় খোকন দালাল ও টিটু দালালগংরা রাস্তা দখল করে বৃক্ষ রোপনের নামে প্রধানমন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ সদস্যের ছবি সম্বলিত সাইন বোর্ড টানিয়ে এবং রাস্তা কেটে দিয়েছে। এতে আমাদের ইট ভাটাটি বন্ধের উপক্রম হয়েছে। ভঁয়ে ও আতঙ্কে আমাদের শ্রমিকরা চলে গেছে। আমরাও আতঙ্কের মধ্যে আছি।

 

স্থানীয় আব্দুল হাই মোল্যা জানান, আমাদের রাস্তার জায়গায় ভাটার কাছে ১০ বছরের জন্য ভাড়া দিয়েছি। স্থানীয় প্রভাবশালী টিটু দালাল কিছু লোক নিয়ে এসে আমাদের জমি দখল করে রাস্তায় কলাগাছ ও আমাদের ঘরের সাথে ঠেকিয়ে রাস্তার উপর ঘর নির্মাণ করেছে। তিনি আমাদের জমি জোড়পূর্বক দখল করছে।

 

অভিযুক্ত টিটু দালাল জানান, আমি ২০১৭ সালে রাস্তার জমিটি বায়না করি। ২০২১ ইং সালে জমি দলিল করে মালিক হয়েছি। আমি আমার জমি ভোগ দখল করি কলাগাছ ও ঘর নির্মাণ করি।

 

অভিযুক্ত খোকন দালাল বলেন, আমার জমি ইট ভাটায় ভাড়া দিয়েছিলাম।তিন বছর যাবৎ ভাড়া পরিশোধ না করায় আমি আমার জমিতে গাছ লাগিয়েছি। প্রধানমন্ত্রীর ও স্থানীয় সংসদ সদস্য নাহিম রাজ্জাকের ছবি সম্বলিত সাইনবোর্ড সাটানো বিষয়ে তিনি মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

 

এ বিষয়ে ভেদরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান জানান, এ বিষয়ে ইট ভাটার মালিকরা থানায় একটি জিডি করেছে। সেখানে পুলিশ পাঠিয়েছি। জমির মালিরা লীজ দিবেনা- এতটুকুই জানি।