রবিবার, ১৭ই অক্টোবর, ২০২১ ইং, ১লা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১১ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরী
রবিবার, ১৭ই অক্টোবর, ২০২১ ইং

শরীয়তপুর সখীপুরে শিশুকন্যা যৌন হয়রানির শিকার

শরীয়তপুর সখীপুরে শিশুকন্যা যৌন হয়রানির শিকার

শরীয়তপুর ভেদরগঞ্জ উপজেলার সখিপুর থানার ডিম খালি ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের চরচান্দা হাওলাদার কান্দি গ্রামের চাচা জহুরুল হক হাওলাদার(৫৫)এর দাঁড়া ৭বছরের শিশু কন্যা যৌন হয়রানির শিকার হয়েছে।

গত ১১ অক্টোবর দুপুর দেড়টার দিকে জহিরুল হক হাওলাদার তার নিজ বাড়িতে পরিত্যক্ত নিরিবিলি একটি খালি ঘরে নির্জন পরিবেশে ওই ৭বছরের শিশুকন্যাকে ডেকে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্ট ও শারীরিকভাবে যৌন হয়রানি করেন চাচা জহিরুল হক হাওলাদার।

যৌন হয়রানির শিকার ৭বছরের শিশু কন্যার মা বলেন, ঘটনার ঐদিন আমি পুকুরে গোসল সারতে গেলে আমার ভাসুর জহুরুল হক হাওলাদার আমার মেয়েকে ডেকে নিয়ে তার একটা খালি ঘরে ধর্ষণের চেষ্টা ও যৌন হয়রানি করে। দুপুরের গোসল সেরে বাড়িতে আসলে আমার মেয়ে কান্না করলে আমি তাকে জিজ্ঞেস করি কি হয়েছে, তখন আমার মেয়ে আমাকে বলে বড় জেডা আমার সাথে খারাপ আচরন করেছে। আমার মেয়ের শরীরের বিভিন্ন স্থানে যৌন হয়রানির চিহ্ন দেখতে পেয়ে আমার ভাসুর জহুরুল হক হাওলাদার এর স্ত্রী ও মেয়ের কাছে বিষয়টি জানালে উল্টো আমার সাথে খারাপ আচরণ করে। আমার মেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়লে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করি। বর্তমানে আমার মেয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।

ডি এমখালি ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের মেম্বার আবু কালাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ধর্ষণ চেষ্টার বিচার আমরা মেম্বার চেয়ারম্যানরা করতে পারি না ! কিন্তু উভয় পক্ষ এবং এলাকার সম্মানের স্বার্থে আমরা দুই এক দিনের মধ্যে বিষয়টি সমাধান করে দিব ৷

ডি এম খালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবু বেপারী বলেন, থানা থেকে আমাকে ফোন দিয়েছিল জিডি হয়েছে, বাদি বিবাদী উভয়পক্ষ আমার কাছে এসেছিল আমি একসাথে বসে সমাধান করে দেব।

সখিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান হাওলাদার মুঠোফোনে বলেন, ধর্ষণের চেষ্টা ও যৌন হয়রানির শিকার সম্পর্কে আমি কিছুই জানিনা।

ভেদরগঞ্জ থানার অতিরিক্ত সার্কেল এসপি বলেন, বিষয়টি আমি জানিনা তবে (ওসি) কে বলতেছি । ওসির কাছে আপনি বাদিকে পাঠান ওসি মামলা নিবে আমি বলে দেব।