বৃহস্পতিবার, ৯ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ ইং, ২৬শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৭ই রজব, ১৪৪৪ হিজরী
বৃহস্পতিবার, ৯ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ ইং

আইনজীবী সহকারীবৃন্দ বিচারাঙ্গনের প্রাণঃ শেখ মফিজুর রহমান

আইনজীবী সহকারীবৃন্দ বিচারাঙ্গনের প্রাণঃ শেখ মফিজুর রহমান

মাদারীপুর লিগ্যাল এইড এসোসিয়েশনের সহযোগিতায় শরীয়তপুর জেলা লিগ্যাল এইড অফিস কর্তৃক প্যানেল আইনজীবীগণের সহকারীবৃন্দের অংশগ্রহণে এক উদ্বুদ্ধকরণ সভা ।

রবিবার ২৭ নভেম্বর শরীয়তপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালত ভবনের ২০৩ নং কক্ষে শরীয়তপুর জেলা লিগ্যাল এইড কমিটির চেয়ারম্যান সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমান এর সভাপতিত্বে এবং প্রোমটিং রুল অব ল থ্র স্ট্রেনদেনিং ফরমাল এন্ড ইনফরমাল জাস্টিস সিস্টেম এর প্রকল্প সমন্বয়কারী অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ ইব্রাহিম মিয়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখে সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমান। উক্ত সভায় আরো বক্তব্য রাখেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালের বিচারক স্বপন কুমার সরকার, চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট জনাব মো: সালেহুজ্জামান, মাদারীপুর লিগ্যাল এইড এসোসিয়েশন এর প্রধান সমন্বয়কারী অ্যাডভোকেট খান মোঃ শহীদ।

সভায় জেলা লিগ্যাল এইড অফিসার ( সিনিয়র সহকারী জজ) মোঃ খালেদ মিয়া আইনগত সহায়তা প্রদান আইন, ২০০০ এবং প্যানেল আইনজীবীগণের সহকারীবৃন্দের করণীয় বিষয়ে এক সংক্ষিপ্ত আলোচনা পেশ করেন। অতঃপর সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমান প্যানেল আইনজীবীগণের সহকারীবৃন্দের সাথে মতবিনিময় করেন।

সভায় জেলা লিগ্যাল এইড কমিটির চেয়ারম্যান সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমান তার বক্তব্যে বলেন, মাদারীপুর লিগ্যাল এইড এসোসিয়েশন বিনা মূল্যে আইনগত সহায়তা প্রদানে বাংলাদেশে পথিকৃৎ। তাদের সহযোগিতায় আজকের এই আয়োজন। বিচার প্রার্থী দরিদ্র ও অস্বচ্ছল মানুষের আইনের আশ্রয় লাভের অধিকার নিশ্চিত করতে আইনজীবী সহকারীবৃন্দ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারেন।

আইনজীবীগণের সহকারীবৃন্দ বিচারাঙ্গনের প্রাণ। বিচার প্রার্থী মানুষ আপনাদের কাছে আসলে তাদের লিগ্যাল এইড অফিসের সেবা গ্রহণের জন্য উৎসাহিত করবেন, অসহায় মানুষের প্রতি সহানুভূতিশীল হবেন। আপনাদের সহযোগিতায় শরীয়তপুর জেলা লিগ্যাল এইড অফিসের কার্যক্রম প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর দোরগোড়ায় পৌছে যাবে।দরিদ্র মানুষের ন্যায় বিচারে অভিগম্যতা নিশ্চিত করার লক্ষে বাংলাদেশে জাতীয় আইনগত সহায়তা আইন, ২০০০ প্রণয়ন করে সরকারি খরচে আইনগত সহায়তা কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে হয়েছে। জেলা লিগ্যাল এইড অফিস থেকে যে কোন নাগরিক আইনগত তথ্য, পরামর্শ পেতে পারে, যে কোন নাগরিক মামলা না করে বিকল্প উপায়ে আপোষযোগ্য বিরোধ নিষ্পত্তির জন্য লিগ্যাল এইড অফিসের সহায়তা নিতে পারে,দরিদ্র-অসহায় মানুষ সরকারি খরচে মামলা দায়ের করতে পারেন। তবে এ বিষয়ে জনসচেতনতা গড়ে তুলতে আইনগত সহায়তা কার্যক্রমের ব্যাপক প্রচারনা দরকার। দরিদ্র, অসহায় ও সহায় সম্বলহীন মানুষকে জেলা লিগ্যাল এইড অফিসের কর্যক্রম সম্পর্কে অবগত করতে হবে। এ ক্ষেত্রে আইনজীবীগণের সহকারীবৃন্দ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে।
উল্লেখ্য, জেলা লিগ্যাল এইড অফিস কর্তৃক প্যানেল আইনজীবীগণের সহকারীবৃন্দের সমন্বয়ে আয়োজিত এটাই বাংলাদেশের প্রথম সভা।


error: Content is protected !!