বুধবার, ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং, ৮ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৬ই সফর, ১৪৪২ হিজরী
বুধবার, ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং
জাজিরায় জমি নিয়ে বিরোধ

হামলা ও লুট, ২ মহিলা আহত

হামলা ও লুট, ২ মহিলা আহত

আহতের পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শরীয়তপুর জেলার জাজিরা উপজেলার পশ্চিম নাওডোবা ইউনিয়নের করিম হাওলাদার কান্দি গ্রামের মোঃ ইদ্রিস হাওলাদার(৪২) হাজী আব্দুর রহমান হাওলাদার গংদের সাথে স্থানীয় ভূমিদস্যু মান্নান হাওলাদার (৭০), মোঃ লিয়াকত বেপারী, মোঃ ফোরহাদ হাওলাদার(৩৫), মোঃ রফিক হাওলাদার (৩০), মোঃ সওকত বেপারী (৩২), মোঃ মতি হাওলাদার, আবু বকর সিদ্দিক হাওলাদার গংদের সাথে দীর্ঘদিন ধরে জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিলো। এদিকে ভূমিদস্যু মান্নান হাওলাদার এর নেতৃত্বে তার লোকজন প্রতিপক্ষ মোঃ ইদ্রিস গংদের পৈতৃক সম্পত্তি প্রায় ৪০ বছর ভোগ-দখলকৃত জমিতে জোরপূর্বক চারা গাছ লাগিয়ে দখল করার চেষ্টা করে মান্নান হাওলাদার ও তার লোকজন।

গত সোমবার গাছের চারা লাগাতে বাঁধা দিতে গেলে মান্নান হাওলাদারের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা দিনে দুপুরে প্রকাশ্যে প্রতিপক্ষ মোঃ ইদ্রিস হাওলাদার এর স্ত্রী মোসাঃ হাসিনা বেগমকে হত্যার হুমকি ধামকি সহ অকথ্য ভাষায় গালাগালি করতে থাকে, এক পর্যায় তার গলায় থাকা চেইন ছিনিয়ে নিয়ে যায়। পরে মান্নান হাওলাদারের হাতে থাকা ধারালো ছ্যান দা দিয়ে কুপিয়ে মারত্মক রক্ত জখম করে, এতে হাসিনা সংজ্ঞাহীন হয়ে গেলে তাকে উদ্ধার করতে গেলে, হাসিনা বেগমের শাশুড়ি কামরুন নেছাকে একই কায়দায় গলার চেইন ছিনিয়ে নেয় এবং রড দিয়ে এলো পাথারী পিটাতে থাকে। একপর্যায় সেও মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। স্থানীয়দের সহায়তায় তাদের জাজিরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় মোঃ ইদ্রিস হাওলাদার বাদী হয়ে জাজিরা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত মান্নান হাওলাদারের বাড়িতে গেলে তাকে পাওয়া যায়নি। তার মোবাইল নম্বরও কেউ দিতে রাজী হয়নি। তবে এলাকাবাসীর উপস্থিতিতে ও মোবাইলে ধারণকৃত ফুটেজে হামলার প্রমাণ পাওয়া গেছে।

এই বিষয়ে জাজিরা থানার তদন্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ মজিদ জানান, নাওডোবা ইউনিয়নের করিম হাওলাদারের কান্দি জমি জমা নিয়ে বিরোধে হামলার ঘটনা ঘটেছে, হামলার শিকার পরিবার আমাদের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। ঘটনাস্থলে তদন্তের জন্য পুলিশ পাঠিয়েছি, প্রমাণ পাওয়া গেলে দোষিদের বিরেুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।