মঙ্গলবার, ১৪ই জুলাই, ২০২০ ইং, ৩০শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৩শে জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী
মঙ্গলবার, ১৪ই জুলাই, ২০২০ ইং

আপত্তিকর ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ায় নড়িয়ায় সাবেক স্বামী আটক

আপত্তিকর ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ায় নড়িয়ায় সাবেক স্বামী আটক

শরীয়তপুরের নড়িয়ায় গৃহবধূর আপত্তিকর অশ্লীল ছবি ও ভিডিও ধারণ করে ভূয়া ফেসবুক আইডি দিয়ে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে মো. আলী আজম (২৯) নামে এক যুবককে আটক করেছে র‌্যাব।

র‌্যাব-৮ মাদারীপুর ক্যাম্পের কোম্পানী অধিনায়ক মোহাম্মদ তাজুল ইসলামের নেতৃত্বে একটি বিশেষ আভিযানিক দল মঙ্গলবার ১৬ জুন দিবাগত রাত ৩ টায় শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার বারুইপাড়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করে।

আলী আজম শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া থানার হালিসার গ্রামের আব্দুস সোবাহান হাওলাদারের ছেলে।

র‌্যাব-৮ এর মাদারীপুর ক্যাম্প সূত্রে ও ঘটনার বিবরণে জানা যায়, ২০১৪ সালের আগষ্ট মাসে অভিযুক্ত মো. আলী আজমের সঙ্গে ভিকটিমের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে অভিযুক্ত ব্যক্তি ভিকটিমকে ভয়ভীতি দেখিয়ে এবং বিভিন্ন অজুহাতে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করতে থাকে। অভিযুক্ত ব্যক্তি ভিকটিমের সঙ্গে শারীরিক মেলামেশার সময় ভিকটিমের ইচ্ছার বিরুদ্ধে কৌশলে তার মোবাইলে বিভিন্নভাবে অশ্লীল ছবি ও ভিডিও ধারণ করে। একপর্যায়ে ভিকটিম অভিযুক্তের নির্যাতনে অতিষ্ট হয়ে ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর মাসে সিরাজগঞ্জ বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে ভিকটিমের বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটায়।

অভিযুক্ত আলী আজম ক্ষিপ্ত হয়ে ফেইসবুকে ভিকটিমের নামে একাধিক ফেইক আইডি ব্যবহার করে ভিকটিমের অশ্লীল ছবি ও ধারণকৃত ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে ভিকটিমের বাবাকে বিভিন্নভাবে হুমকি দিতে থাকে। এক পর্যায়ে ভূয়া ফেইসবুক আইডি দিয়ে বিভিন্ন লেখাসহ ভিকটিমের অশ্লীল ছবি ও ধারণকৃত ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়।

এ ঘটনা থেকে পরিত্রাণ পেতে ভিকটিম গত ১৫ জুন র‌্যাবের নিকট অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের ভিত্তিতে র‌্যাব-৮, সিপিসি-৩, মাদারীপুর ক্যাম্পের একটি বিশেষ আভিযানিক দল অভিযুক্ত আলী আজমকে আটক করে।

র‌্যাব জানায়, আটককৃত আসামীকে শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। উক্ত ঘটনার বিষয়ে ভিকটিম বাদী হয়ে শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।