Saturday 24th February 2024
Saturday 24th February 2024

Notice: Undefined index: top-menu-onoff-sm in /home/hongkarc/rudrabarta.net/wp-content/themes/newsuncode/lib/part/top-part.php on line 67

শরীয়তপুরে ইভটিজিং এর প্রতিবাদ করায় হামলা ভাংচুর আহত- ৩

শরীয়তপুরে ইভটিজিং এর প্রতিবাদ করায় হামলা ভাংচুর আহত- ৩

শরীয়তপুরে জাজিরা উপজেলায় স্থানীয় বখাটে সুমন মোল্লার (২২) দ্বারা জোরপূর্বক শ্লিলতা হানির শিকার হয়েছে বি,কে নগর ছোবান্দি মাদবর কান্দি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেনীর ছাত্রী সাদিয়া। এই ঘটনায় সাদিয়ার পরিবার প্রতিবাদ করলে তাদের উপর হামলা ভাংচুর ও লুটপাট চালায় বখাটে সুমন মোল্লা ও তার সহযোগী সন্ত্রাসীরা। এতে করে সাদিয়ার পরিবারের ৩ জন আহত হয়েছে।
আহতরা হচ্ছেন, ঠান্ডু মৃধা (৩৫), জসিম মৃধা (৩২) ও মনু মৃধা (৩৬)। হামলাকারীরা এ সময় সাদিয়ার পরিবারের বাড়িঘর কুপিয়ে মূল্যবান আসবাবপত্র নষ্ট করে এবং লুটপাট চালায়। এ ঘটনায় এলাকায় ক্ষোভ বিরাজ করছে। আহতদের জাজিরা উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ঠান্ডু মৃধা ও জসিম মৃধার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদেরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেলে প্রেরন করেন।
গত সোমবার সরেজমিনে গিয়ে আহতের পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জাজিরা উপজেলার বি,কে নগর ইউনিয়নের ছোবান্দি মাদবর কান্দি গ্রামের ছোবান্দি মাদবর কান্দি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেনীর ছাত্রী সাদিয়া আক্তার (১০) কে একই গ্রামের হাকিম মোল্লার লম্পট ছেলে সুমন মোল্লা (২২) দীর্ঘদিন যাবত স্কুলে যাওয়ার ও আসার পথে বিভিন্ন সময়ে প্রেম নিবেদনসহ কু-প্রস্তাব দিতো এবং উত্ত্যক্ত করতো। কিন্তু গত ৮ সেপ্টেম্বর রবিবার দুপুর ১২টার দিকে সাদিয়া আক্তার স্কুলের নিকটবর্তী দোকান থেকে টিফিন কিনে ক্লাসে ফেরার সময় ওঁৎ পেতে থাকা সুমন তাকে জোর করে মুখ চেপে গ্রামস্থ মজিদ মোল্লার বাড়ীর দক্ষিণে কাচা রাস্তায় নিয়ে যায়। এবং সেখানে সাদিয়াকে ভয় দেখিয়ে যৌন কামনা চরিতার্থ করার উদ্দেশ্যে জোর পূর্বক সাদিয়াকে জাপটিয়ে ধরে শরীরের বিভিন্ন লজ্জাস্থানে হাত দিয়ে স্পর্শ ও গলায় চুমু দেয়। এরপর সাদিয়া চিৎকার দিলে লম্পট সুমন দৌড়ে পালিয়ে যায়। বিষয়টি সাদিয়া তার পরিবারকে জানালে সাদিয়ার পরিবার সুমন এর পরিবারের কাছে বিচার দেন। কিন্তু লম্পট সুমন তাতেও খ্যান্ত হয়নি বরং ঘটনার ওইদিন সাদিয়ার বাসার সামনে গিয়ে ওঁৎ পেতে বসে থাকে তার সহযোগী সন্ত্রাসী ইয়াছিন মোল্লা, হাকিম মোল্লা, তৈয়ব আলী মাদবর, সামাদ মোল্লা, ইউনুছ মোল্যা, বোরহান মোল্লা, আল আমিন মোল্লা, মোঃ আফছার মোল্লা, মোঃ আনোয়ার মোল্লা, নুরু মিয়া মোল্লা, নুরু সরদার, ইব্রাহিম মোল্লা, মোঃ শাহিন মোল্লা, মজিবর মোল্লা, জালাল মাল্লা, মোঃ সালাম মোল্লা, শহি মোল্লা, আল আমিন সরদার, রশিদ মোল্লা, ফারুক মোল্লা, লোকমান মোল্লা ও ওসমান মোল্লা। ওঁৎ পেতে থাকা সন্ত্রাসী সুমন মোল্লার নেতৃত্বে ও তার লোকজন রবিবার রাত ৮টার দিকে সাদিয়া আক্তার এর পিতা ও আপন চাচা জসিম মৃধা, ঠান্ডু মৃধা ও মনু মৃধার উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এ সময় হামলাকারীরা বাড়িঘর কুপিয়ে ঘরের ভেতরে থাকা আসবাবপত্র ভাংচুর করে এবং লুটতরাজ চালায় এবং এসময় নগদ ৫০ হাজার ৫০০ টাকা ও গলায় থাকা আট আনা স্বর্ণের চেইন ছিড়ে নিয়ে যায়, যার মূল্য আনুমানিক ২৫ হাজার টাকা। এ ঘটনায় সাদিয়ার দাদা তোতা মৃধা জাজিরা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।
এ ব্যাপারে অভিযুক্ত সুমন মোল্লার বাড়িতে গেলে তাকে পাওয়া যায়নি। সুমনের চাচার সাথে কথা বললে তিনি বলেন, সাদিয়ার বাবা দাদার সাথে আমাদের পূর্ব শত্রুতা রয়েছে। তাই তারা আমাদের বিভিন্ন ভাবে হয়রানি করতাছে। আমাদের বিরুদ্ধে সকল অভিযোগ মিথ্যা।