সোমবার, ২৩শে মে, ২০২২ ইং, ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২২শে শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরী
সোমবার, ২৩শে মে, ২০২২ ইং

সয়াবিন তেল বেশি দামে বিক্রি করায় ৫০ হাজার টাকা জরিমানা

সয়াবিন তেল বেশি দামে বিক্রি করায় ৫০ হাজার টাকা জরিমানা

পাঁচ লিটার সয়াবিন তেলের মূল্য বোতলে ৭৬০ টাকা লেখা থাকলেও তার খুচরা ব্যবসায়ীদের কাছে পাইকারী বিক্রি হচ্ছে ৯৩০ টাকায়।

নির্ধারিত দামের চেয়ে ১৭০ টাকা বেশি মূল্যে পাঁচ লিটার সয়াবিন তেল বিক্রি করায় এক ডিলারকে গুনতে হলো ৫০ হাজার টাকা আর্থিক জরিমানা।

বৃহস্পতিবার বেলা ১টার দিকে মাদারীপুরে সদর উপজেলার তাঁতিবাড়ি বাজারে অভিযান পরিচালনা করে জরিমানা আদায় করেন ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক জান্নাতুল ফেরদাউস।
ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর ও স্থানীয় সূত্র জানায়, মাদারীপুর পৌরসভা এলাকার সিফাত এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী মফিজুল ইসলাম তার গুদামে ঈদের আগে সয়াবিন তেল মজুদ করে রাখেন। হঠাৎ করে তেলের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় তিনি গুদাম থেকে সিটি গ্রুপের সয়াবিন তেল বাজারে খুচরা দোকানীদের কাছে বর্ধিত দামে বিক্রি শুরু করেন।

বৃহস্পতিবার বেলা ১২টার দিকে সিফাত এন্টারপ্রাইজের একটি ভ্যানে প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপক বিল্লাল ফকির তাঁতিবাড়ি এলাকায় যান। পরে তিনি তাঁতিবাড়ি বাজারের দোকানদারদের কাছে ৭৬০ টাকার ৫ লিটারের সয়াবিন তেলের দাম ৯৩০ টাকায় বিক্রি শুরু করেন। বিষয়টি বুঝতে পেরে স্থানীয়রা ডিলারের ব্যবস্থাপক বিল্লালকে আটক করেন। পরে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন অধিদপ্তরকে খবর দিলে তারা ডিলারের ভ্যানে থাকা ৬৭২ লিটার সয়াবিন তেল জব্দ করেন। এ সময় সিফাত এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী মফিজুল ইসলামকে ৫০ হাজার টাকা আর্থিক জরিমানা আদায় করে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক জান্নাতুল ফেরদাউস। পরে জব্দ হওয়া তেল খুচরা বাজারে নায্য দামে ভোক্তাদের কাছে বিক্রি করা হয়।

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক জান্নাতুল ফেরদাউস বলেন, ‘ওই ডিলারের মালিক ঈদের আগে তেল মজুদ করে রাখেন এবং তেলের যেই দাম ছিল তার থেকে ১৭০ টাকা বেশি দরে তিনি খুচরা বাজারে বিক্রি করছেন। যা ভোক্তা অধিকার আইনে দণ্ডণীয় অপরাধ। এ জন্য ডিলার মালিককে আমরা ৫০ হাজার টাকা আর্থিক জরিমানা করেছি।