• ব্রেকিং নিউজ

    আজ শরীয়তপুরের ৩ টি আসনে সর্বোচ্চ নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হবে ভোট

    রুদ্রবার্তা প্রতিবেদক

    প্রকাশিত: ৩০ ডিসেম্বর ২০১৮ সময়: ৬:৫৫ পূর্বাহ্ণ 233 বার

    আজ শরীয়তপুরের ৩ টি আসনে সর্বোচ্চ নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হবে ভোট

    প্রচার-প্রচারণা শেষ। জাতির প্রতীক্ষিত ভোট ৩০ ডিসেম্বর রবিবার। তাই সারা দেশের মতো নির্বাচনের দিকে দৃষ্টি শরীয়তপুরবাসীরও। নির্বাচন ঘিরে বৃহস্পতিবার শেষ দিন প্রচারণায় সরগরম ছিলো শরীয়তপুর। শহর থেকে গ্রামের চায়ের দোকানেও ঝড় তুলেছে একাদশ জাতীয়সংসদ নির্বাচন। নবীন, প্রবীনতরুণসহ সব বয়সের মানুষের মুখে মুখে এখন নির্বাচনের চর্চা। চারদিকে আলাপ-আলোচনায় উৎসবমূখর হয়ে উঠেছে শরীয়তপুরের জনপথ।
    এবার নির্বাচনে শরীয়তপুরের তিনটি আসনে লড়বে ১৮ জনপ্রার্থী। তাই নির্বাচন নিয়ে চ্যালেঞ্জের মুখে প্রধান দুই রাজনৈতিক দল আওয়ামীলীগ ও বিএনপি। তবে কে কাকে ভোট দেবেন, তা নিয়ে মনস্থিরের চিন্তায় ভোটাররা। মেলাচ্ছেন হিসাব-নিকাশ। তবে ভোটাররা বলছে, যে সরকার এলাকার শান্তি ও উন্নয়নের জন্য ভূমিকা রাখবে তাকেই ভোট দেবেন তারা।
    শরীয়তপুরে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্নভাবে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন করতে ৯শ’ পুলিশের পাশাপাশি বিজিবি, র‌্যাব ও সেনাবাহিনীর সদস্যরা মাঠে কাজ করবে বলে জানিয়েছেন পুলিশ সুপার আব্দুল মোমেন। শুক্রবার তিনি রুদ্রবার্তাকে জানান, উৎসবমূখর পরিবেশে ভোটাররা যাতে তাদের পছন্দের প্রার্থীকে নির্বিঘেœ ভোট দিতে পারে সেজন্য জেলা পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।
    শরীয়তপুরে নির্বাচনী আসন সংখ্যা মোট ৩টি। এগুলো হলো- শরীয়তপুর-১ (পালং-জাজিরা), শরীয়তপুর-২ (নড়িয়া-সখিপুর) ও শরীয়তপুর-৩ (ভেদরগঞ্জ-ডামুড্যা-গোসাইরহাট)। এই তিনটি আসনে মোট ভোটার সংখ্যা ৮ লাখ ৬১ হাজার ৬’শ ৫৭ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার রয়েছে ৪ লাখ ৪২ হাজার ৫শ’৮৪ জন ও নারী ভোটার রয়েছে ৪লাখ ১৯হাজার ৭৩ জন। মোট ভোট কেন্দ্রের সংখ্যা ৩ শ’ ৫০ টি এবং মোট ভোট কক্ষের সংখ্যা ১হাজার ৭ শত ৬০ টি। এই তিনটি আসনে মোট ১৮ জনপ্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন এবং এই নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তা হচ্ছেন জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের।
    শরীয়তপুর-১ (পালং-জাজিরা) আসনে মোট ভোটার ২ লাখ ৯৬ হাজার ১৯জন। এদের মধ্যে পুরুষ ভোটার ১লাখ ৫৪হাজার ৭শত ৮৭জন এবং নারী ভোটার ১লাখ ৪১ ২শ৩২ জন। এ আসনে মোট কেন্দ্রের সংখ্যা ১১৮টি।
    এ আসনে মোট ৭ জন প্রাথী রয়েছেন। এরা হলেন, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের ইকবাল হোসেন অপু (নৌকা), বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) সরদার একেএম নাসির উদ্দিন (ধানের শীষ), ইসলামী ঐক্যজোটের মো. মাহদী হাসান (মিনার), জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) নুরুল ইসলাম (তারা), বাংলাদেশ কমিউনিষ্ট পার্টির মোদাচ্ছের হোসেন বাবুল (কাস্তে), বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের মো. আব্দুস সামাদ (বটগাছ) ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. তোফায়েল আহমেদ (হাত পাখা)।
    শরীয়তপুর-২ (নড়িয়া-সখিপুর) আসনে মোট ভোটার রয়েছে ৩লাখ ১০হাজার ৩শ ৪৩ জন। এদের মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৫৮হাজার ২শ ৪৮ ভোট এবং নারী ভোটার ১লাখ ৫২ হাজার ৯৫জন । এ আসনে মোট কেন্দ্রের সংখ্যা ১৩২টি।
    এ আসনে মোট প্রার্থী রয়েছে ৬ জন। এরা হলেন, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের একেএম এনামুল হক শামীম (নৌকা), বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপির) মো. শফিকুর রহমান কিরণ (ধানের শীষ), বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের মাহমুদুল হাছান (বটগাছ), জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) মো. ফিরোজ মিয়া (ফিরোজশাহী) (মশাল), জাকের পার্টির মো. বাদল কাজী (গোলাপ ফুল) ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের হাফেজ মাওলানা শওকত আলী (হাতপাখা)।
    শরীয়তপুর-৩ (ভেদরগঞ্জ-ডামুড্যা-গোসাইরহাট) আসনে মোট ভোটার ২ লাখ ৫৫ হাজার ২শ ৯৫ এদের মধ্যে পুরুষ ভোটার ১লাখ ২৯ হাজার ৫শ’ ৪৯ জন ও নারী ভোটার ১লাখ ২৫ হাজার ৭শ ৪৬জন। এ আসনে মোট কেন্দ্রের সংখ্যা ১শ’ টি।
    এ আসনে মোটপ্রার্থী ৫ জন। এরা হলেন, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের নাহিম রাজ্জাক (নৌকা), বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি’র) মিয়া নুরুদ্দীন আহমেদ অপু (ধানেরশীষ), জাতীয়পার্টির মো. আব্দুল হান্নান (লাঙ্গল), বাংলাদেশ কমিউনিষ্ট পার্টির সুশান্ত ভাওয়াল (কাস্তে) ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. তোফায়েল আহমেদ (হাতপাখা)।
    পুলিশ সুপার আব্দুল মোমেন বলেন, নির্বাচন শান্তিপূর্ন করতে পুলিশের ৯শ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। পাশাপাশি বিজিবি, র‌্যাব ও সেনাবাহিনীর সদস্যরা স্টাইকিং ফোর্স হিসেবে মাঠে কাজ করবে। এ জন্য ফোর্স অফিসারদের প্রয়োজনীয় ব্রিফিং করা হয়েছে। ইতিমধ্যে জেলার সকল কেন্দ্রগুলো নির্বাচনী সরঞ্জাম নেয়া শুরু হয়েছে। আশা করছি শরীয়তপুরবাসীকে একটি শান্তিপূর্ন সুন্দর নির্বাচন উপহার দিতে পারবো।
    অন্যদিকে নির্বাচনের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন জেলা প্রশাসক ও রিটানিং কর্মকর্তা। জেলার কেন্দ্রেগুলোতে পাঠানো হয়েছে নিবার্চনীয় সরঞ্জাম ও ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের। ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাগুলোতে মোতায়ন করা হয়েছে আইন-শৃঙ্খলাবাহিনীও। সম্ভাব্য সব সহিংসতা মোকাবেলা করতে প্রস্তুত প্রশাসন। একই সাথে প্রস্তুত শরীয়তপুরবাসীও তাদের পছন্দের সম্ভাব্য সংসদ সদস্যকে বেছে নিতে।
    এ ব্যাপারে জেলাপ্রশাসক ও রিটানিং কর্মকর্তা কাজী আবু তাহের জানান, নির্বাচনকে সামনে রেখে শরীয়তপুরের ভোট কেন্দ্র গুলো প্রস্তুত করা হয়েছে। মোতায়ন করা হয়েছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। আশাকরি ৩০ ডিসেম্বর একটি সুষ্ঠু নির্বাচন শরীয়তপুরবাসীকে উপহার দেওয়া সম্ভব হবে।

    :: শেয়ার করুন ::

    Comments

    comments

    সংবাদটি ফেইসবুকে শেয়ার করুন

    দৈনিক রুদ্রবার্তা/শরীয়তপুর/৩০ ডিসেম্বর ২০১৮/


    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত


    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫
    ১৬১৭১৮১৯২০২১২২
    ২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
    ৩০৩১  
  • ফেসবুকে দৈনিক রুদ্রবার্তা

  • error: নিউজ কপি করা নিষেধ!!