Thursday 30th May 2024
Thursday 30th May 2024

Notice: Undefined index: top-menu-onoff-sm in /home/hongkarc/rudrabarta.net/wp-content/themes/newsuncode/lib/part/top-part.php on line 67

ভেদরগঞ্জে টয়লেটের টাকা আত্মসাত

ভেদরগঞ্জে টয়লেটের টাকা আত্মসাত

শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলার কাঁচিকাটা ইউনিয়নে জেলা পরিষদ থেকে বরাদ্দকৃত সরকারি টয়লেট নির্মাণের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। কাঁচিকাটা বাজার কমিটির সভাপতি মিলন মুন্সির বিরুদ্ধে এ অভিযোগ করেছে স্থানীয়রা। স্থানীয়দের অভিযোগ, সরকারিভাবে কাঁচিকাটা বাজারের জন্য একটি দুই কক্ষ বিশিষ্ট টায়লেট নির্মাণের বরাদ্দ দেয়া হলেও মিলন মুন্সি একটি কক্ষ নির্মাণ করে কৌশলে বাকী টাকা আত্মসাতের চেষ্টা করছেন।
সরেজমিন ঘুরে ও স্থানীয়দের সাথে আলাপ করে জানা গেছে, কয়েক মাস আগে কাঁচিকাটা বাজারের দোকানদার ও ক্রেতা-বিক্রেতার কথা বিবেচনা করে শরীয়তপুর জেলা পরিষদ থেকে একটি দুই কক্ষ বিশিষ্ট টয়লেট বরাদ্দ দেয়া হয়। যার নির্মাণ ব্যয় ধরা হয় ২ লক্ষ টাকা। কাঁচিকাটা বাজার মালিক কমিটির সভাপতি মিলন মুন্সিকে এ টয়লেট নির্মাণের দায়িত্ব নেন। কার্যবিবরণী অনুযায়ী সেখানে দুই কক্ষ বিশিষ্ট টয়লেটের নির্মাণের কথা থাকলেও তিনি একটি কক্ষ নির্মাণ করেছেন। আর নতুন কক্ষটি পুরাতন একটি টয়লেটের সাথে এমনভাবে জোঁড়া দেয়া হয়েছে যা দেখলে দুই কক্ষ বিশিষ্ট মনে হয়। কিন্তু ঐ পুরাতন টয়লেটটি প্রায় ২ বছর আগে নির্মাণ করা হয়েছিল। অথচ জেলা পরিষদের প্রকৌশলীরা তদারকি করেও রহস্যজনক কারনে এ নির্মাণ কাজে কোন ত্রুটি পায়নি।
স্থানীয় বাসিন্দা ককন হাওলাদার বলেন, শুনেছি এখানে একটি ডাবল টয়লেট নির্মানের জন্য দুই লক্ষ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। কিন্তু মিলন মুন্সি দুই বছর আগের পুরাতন একটি টয়লেটের সাথে জোড়া দিয়ে দুই কক্ষ বানিয়েছেন। বাকী টাকা তিনি আত্মসাত করেছেন।
বাজার কমিটির সভাপতি মিলন মুন্সি বলেন, ঐ টয়লেট নির্মাণের কাজ শেষ। আমাকে যেভাবে করতে বলা হয়েছে আমি সেভাবেই করেছি।
এ বিষয়ে শরীয়তপুর জেলা পরিষদের প্রকৌশলী ভাস্কর মৃধা বলেন, আমি সেখানে গিয়েছিলাম। দেখছি সব ঠিক আছে। তাছাড়া এমনভাবে যদি চালাকি করে আমাদের কি করার থাকে বলেন। তাছাড়া সেখানে এখনো বিল দেয়া হয়নি।