বৃহস্পতিবার, ২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ ইং, ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৩রা রবিউল-আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরী
বৃহস্পতিবার, ২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ ইং

শরীয়তপুরে চিকিৎসকদের সুরক্ষা সামগ্রী দিলেন বিএম ইউসুফ আলীর পুত্র ডাঃ মাহামুদুল হাসান ইমন

বিএম ইউসুফ আলীর পুত্র ডাঃ মাহামুদুল হাসান ইমন

চিকিৎসক ও নার্স করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষা থেকে চিকিৎসা সেবা দিতে পিপিই, থার্মোমিটার,হ্যান্ড গ্লাভস, সেফটি চশমা ও মাস্ক প্রদান করেছেন ডাক্তার মাহমুদুল হাসান ইমন।

পপুলার লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানী লি: এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স ফোরামের প্রেসিডেন্ট ও বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স এ্যাসোসিয়েশনের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য, দানবীর শরীয়তপুরের কৃতি সন্তান বিএম ইউসুফ আলীর সুযোগ্য পুত্র ডাক্তার মাহমুদুল হাসান ইমন।

তিনি গত ৯ এপ্রিল করোনা মহামারীতে কর্মহীন অসহায় মানুষের জন্য জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহেরকে ২ লক্ষ টাকা প্রদান করেন।

সেই ধারাবাহিকতায় দানবীর বিএম ইউসুফ আলীর সুযোগ্য সন্তান তরুন দানবীর ডা. মাহামুদুল হাসান ইমন শরীয়তপুরে করোনাভাইরাস মোকাবিলায় নিয়োজিত চিকিৎসক ও নার্সদের চিকিৎসকদের সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান করেন।

বুধবার (১৫ এপ্রিল) দুপুরে ডাঃ মাহমুদুল হাসান ইমন শরীয়তপুর জেলা সদর হাসপাতালসহ জেলার অন্যান্য উপজেলা হাসপাতালের চিকিৎসক-স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্যে ১’শ পিস পিপিই, ১’শ পিস সেপটি চশমা, ১’হাজার পিস মাস্ক, ১’হাজার পিস হ্যান্ড গ্লাভস, ২ পিস ইনফারেড থার্মোমিটার, জেলা সিভিল সার্জনের প্রতিনিধি বকতিয়ার হোসেন খান বেনুর হাতে তুলে দেন।

এ ব্যাপারে ডাঃ মাহমুদুল হাসান ইমন বলেন, আমার পিতার শিকড় শরীয়তপুরে। শরীয়তপুরের মাটি ও মানুষের সাথে মিশে আছেন আমার বাবা। আমি তার সন্তান হিসেবে শরীয়তপুর এর প্রতি রয়েছে আমার অনেক ভালোবাসা। সারা বাংলাদেশে বর্তমানে করোনা আতঙ্ক। এই মুহূর্তে ডাক্তার ও নার্স বাঁচলে রোগীরাও বাঁচবে। ডাক্তার নার্স দের সুরক্ষার প্রয়োজন বেশি। চিকিৎসকরা বেঁচে থাকলে রোগীদের বাঁচানো সম্ভব। তাই শরীয়তপুর বাসির কথা চিন্তা করে এই ন্যূনতম উপহার চিকিৎসকদের জন্য।


error: Content is protected !!