মঙ্গলবার, ৪ঠা আগস্ট, ২০২০ ইং, ২০শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৪ই জিলহজ্জ, ১৪৪১ হিজরী
মঙ্গলবার, ৪ঠা আগস্ট, ২০২০ ইং

শরীয়তপুরে প্রায় ৩ যুগ পূর্বে প্রতিষ্ঠিত আশরাফুল উলুম কওমী মাদ্রাসাটি রক্ষার দাবি ওলামা পরিষদের

শরীয়তপুরে প্রায় ৩ যুগ পূর্বে প্রতিষ্ঠিত আশরাফুল উলুম কওমী মাদ্রাসাটি রক্ষার দাবি ওলামা পরিষদের

শরীয়তপুর সদর উপজেলার পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডে শরীয়তপুর পুরোনো হাসপাতাল সংলগ্ন প্রায় ৩ যুগ পূর্বে প্রতিষ্ঠিত আশরাফুল উলুম কওমী মাদ্রাসাটি রক্ষার দাবিতে এক প্রেস ব্রিফিং প্রদান করেন অত্র মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ ও শরীয়তপুর ওলামা পরিষদ।

২৯ জুলাই বুধবার বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে শরীয়তপুর-ঢাকা মহাসড়কের পাশে শরীয়তপুরের বিভিন্ন কওমী মাদ্রাসার শত শত শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণের মাধ্যমে কওমী মাদ্রাসাটি রক্ষার দাবিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, স্থানীয় সংসদ সদস্য ইকবাল হোসেন অপু ও প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণের নিমিত্তে এ প্রেস ব্রিফিং করা হয়।

মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা যায়, ১৯৮৬ সালে ৬০ নং পালং মৌজায় ১১৬২ নং দাগে (ক) ধারায় খাস খতিয়ানভূক্ত জমিতে মাওলানা মো: সিরাজুল ইসলামের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে স্থানীয় এলাকাবাসীর সুপারিশক্রমে তৎকালীন দায়িত্বে থাকা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(রাজস্ব) মো: জুলফিকার-এর সার্বিক সহযোগিতায় ভারত উপ-মহাদেশের প্রক্ষাত আলেমে দ্বীন মাওলানা আশরাফ আলী থানবী(র.) এর নামে নামকরণ করে আশরাফুল উলুম কওমী মাদ্রাসাটি প্রতিষ্ঠিত হয়। মাদ্রাসাটিতে বর্তমানে নূরানী, হেফ্জ ও কিতাব বিভাগ চালু আছে। বেশ সূনামের সাথে অভিজ্ঞ শিক্ষকমন্ডলীসহ মাদ্রাসাটি পরিচালিত হয়ে আসছে। অত্র মাদ্রাসায় ৩০০ এর অধিক শিক্ষার্থী দ্বীনী এলেম চর্চা করছে। এ মাদ্রাসা থেকে এ পর্যন্ত অনেক অভিজ্ঞ আলেম সৃষ্টি হয়েছে। যারা দেশের বিভিন্ন স্থানে কোরআনের খেদমত করছে।

প্রেস ব্রিফিং এ শরীয়তপুর ওলামা পরিষদের আলেমগণ বলেন, প্রায় তিন যুগ ধরে প্রতিষ্ঠিত আশরাফুল উলুম কওমী মাদ্রাসাটি সরকারের এক উর্ধ্বতন কর্মকর্তা সাবেক অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(রাজস্ব) মো: জুলফিকার স্যারের সহযোগিতায় ১৯৮৬ সালে ৬০ নং পালং মৌজায় ১১৬২ নং দাগে (ক) ধারায় খাস খতিয়ানভূক্ত জমিতে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। এ মোতাবেক মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ ভূমি মন্ত্রণালয়ে আবেদন করা হয়েছে। কিন্তু আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে প্রায় তিন যুগ ধরে দখলকৃত আশরাফুল উলুম মাদ্রাসাটির নামে উক্ত জমি বন্দোবস্থ দেওয়া হয়নি। এজন্য উক্ত জমিটি যাতে আশরাফুল উলুম মাদ্রাসাটির নামে বন্দোবস্ত দেওয়া হয়, সেই জন্য আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃষ্টি আকর্ষণ করার জন্য আমাদের প্রানপ্রিয় সংসদ সদস্য ইকবাল হোসেন অপু ও প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করছি। যাতে করে মাদ্রাসাটির ৩০০ শিক্ষার্থী সঠিক এলেম শিক্ষা হতে বঞ্চিত না হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ কওমী মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড শরীয়তপুর জেলা আহবায়ক মাওলানা আবু বকর, সদস্যসচিব ও বুড়িরহাট ঐতিহাসিক জামে মসজিদের খতিব ও ইমাম শাব্বির আহমেদ ওসমানী, শরীয়তপুর ওলামা পরিষদের সভাপতি মাওলানা শফিউল্লাহ খান, শরীয়তপুর ওলামা পরিষদ ও আশরাফুল উলুম কওমী মাদ্রাসা রক্ষা কমিটির ভোজেশ্বর বাজার মসজিদের খতিব হাফেজ মাওলানা শওকত আলী, মাওলানা আ: বাতেন ফরিদী, হা: কারামত আলী, মাওলানা শহিদুল্লাহ খন্দকার, মাওলানা ইদ্রিস কাসেমী, মাওলানা মাহ্দী হাসান সিরাজী, মাওলানা মঈনুদ্দিন কাসেমী, মাওলানা নাঈম আব্বাসী, মুফতি তোফায়েল আহমেদ কাসেমী, মাওলানা ফারুকুল ইসলাম, মাওলানা আ: রহমান ফরায়েজী, মাওলানা মুসলিম উদ্দিন ও মুফতি নাছির উদ্দিনসহ প্রমূখ।