শনিবার, ১লা অক্টোবর, ২০২২ ইং, ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা রবিউল-আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরী
শনিবার, ১লা অক্টোবর, ২০২২ ইং

সমন্বিত কৃষি উন্নয়নের মাধ্যমে পুষ্টি ও খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতকরনে শরীয়তপুরে তিন দিনব্যাপী কৃষি প্রযুক্তি মেলা শুরু

সমন্বিত কৃষি উন্নয়নের মাধ্যমে পুষ্টি ও খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতকরনে শরীয়তপুরে তিন দিনব্যাপী কৃষি প্রযুক্তি মেলা শুরু

শরীয়তপুর সদর উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে তিন দিনব্যাপী কৃষি প্রযুক্তি মেলা শুরু হয়েছে। সোমবার (২৫ ফেব্রুয়ারী) মেলার উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের। সমন্বিত কৃষি উন্নয়নের মাধ্যমে পুষ্টি ও খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ (১ম সংশোধিত) প্রকল্পের আওতায় জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর এই কৃষি প্রযুক্তি মেলার আয়োজন করে। কৃষি প্রযুক্তি মেলার এবারের প্রতিপাদ্য “প্রযুক্তি দিয়ে করবো কৃষি, থাকবো সুখে দিবানিশি”।
উদ্বোধনের আগে মেলা উপলক্ষে জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়ে শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে মেলা প্রাঙ্গণে এসে শেষ হয়।
পরে উপজেলা পরিষদ অডিটরিয়াম আলোচনা সভা ও উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের বলেন, কৃষিতে প্রযুক্তির ব্যবহার বৃদ্ধি ছাড়া আমাদের বিকল্প কোন পথ নেই। ইতোমধ্যে কৃষিতে প্রযুক্তির ব্যবহার শুরু হয়েছে এবং বাংলাদেশ কৃষিতে প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে খাদ্যে স্বয়ং সম্পূর্নতা অর্জন করেছে। বর্তমান সরকার কৃষিবান্ধব সরকার। সরকার বুঝতে পেরেছে কৃষিতেই সমৃদ্ধি। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর প্রতিনিয়ত এই লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে, তারা গবেষনা করছেন এবং সারা বাংলাদেশের গ্রামে গঞ্জের প্রত্যন্ত অঞ্চলে কৃষকদের প্রশিক্ষণ দিচ্ছেন এবং কৃষিতে প্রযুুক্তি ব্যবহারে উৎসাহিত করছেন। এই কারনেই আজকে বাংলাদেশ খাদ্যে স্বয়ং সম্পূর্নতা অর্জন করেছে। সকল ধরণের কৃষি চাষে উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়েছে। এই উৎপাদন আরো বহুগুনে বাড়াতে হবে। কৃষিতে যত বেশি প্রযুক্তি ব্যবহার হবে ততো বেশি উৎপাদন বাড়বে। আমরা চাই বাংলাদেশের গ্রামেগঞ্জে কোন জমি যাতে অনাবাদি না থাকে। প্রতি ইঞ্চি জমি আবাদের আওতায় আনতে হবে। যত ধরণের কৃষি পন্য বাংলাদেশে উৎপাদনের সুযোগ রয়েছে সকল কৃষি পন্য উৎপাদানের মাধ্যমে বাংলাদেশের মানুষের স্বাস্থ্য এবং পুষ্টি সমৃদ্ধ করে বাংলাদেশ একটি সুস্থ্য সবল জাতি হিসেবে সামনের দিকে এগিয়ে যাবে এবং খাদ্যে স্বয়ং সম্পূর্নতা অর্জন করবে। পাশাপাশি আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে খাদ্য রফতানীকারী দেশে পরিণত হওয়া।
শরীয়তপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মো. রিফাতুল হোসাইনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আল মামুন শিকদার ও সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাহাবুর রহমান শেখ। এ সময় বিভিন্ন সরকারী ও বেসরকারী দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও কৃষকরা উপস্থিত ছিলেন।
মেলায় সরকারী-বেসরকারী প্রায় ৩০টি স্টলে কৃষি প্রযুক্তি প্রদর্শন করা হচ্ছে। আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত এই কৃষি প্রযুক্তি মেলা চলবে।


error: Content is protected !!