• ব্রেকিং নিউজ

    শরীয়তপুরে রাতের আঁধারে প্রতিপক্ষের ওপর সন্ত্রাসী হামলায় আহত ৭

    রুদ্রবার্তা প্রতিবেদক

    প্রকাশিত: ১৩ জুন ২০১৯ সময়: ৭:০১ অপরাহ্ণ 688 বার

    শরীয়তপুরে রাতের আঁধারে প্রতিপক্ষের ওপর সন্ত্রাসী হামলায় আহত ৭

    শরীয়তপুর সদর উপজেলায় রাতের আঁধারে প্রতিপক্ষের ওপর অতর্কিত সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে দুই নারী সহ সাত জনকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করা হয়েছে। ওই সাত জনকে উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হলে আশঙ্কজনক অবস্থায় দুইজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। বুধবার (১২ জুন) দিনগত রাত দেড়টার সময় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে ডোমসার ইউনিয়নের পশ্চিম কোয়ারপুর গ্রামে এই হামলার ঘটনা ঘটে। এছাড়া হামলাকারীরা বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাট চালায় বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করতে। । পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িত একজনকে আটক করেছে পুলিশ।
    পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, পশ্চিম কোয়ারপুর গ্রামের সামচেল মাদবরের সাথে একই এলাকার নূর মোহাম্মদ কাজী ও খলিল কাজীর জমি সংক্রান্ত বিরোধে রয়েছে। ২০১১ সনে নূর মোহাম্মদ কাজী ও খলিল কাজীর এক আত্মীয়ের কাছ থেকে ১৯ শতাংশ জমি ক্রয় করে সামচেল মাদবর। এরপর থেকে এ পর্যন্ত সামচেল মাদবর ওই জমি ভোগ দখলে রয়েছেন। সাম্প্রতি নূর মোহাম্মদ কাজী ও খলিল কাজী ওই সম্পত্তি তাদের বলে দাবি করে। এ নিয়ে মামলা ও সালিশ দরবার হয়েছে। গত বুধবার (১২ জুন) রাত দেড়টার দিকে নূর মোহাম্মদ কাজী ও খলিল কাজী হঠাৎ শতাধিক ভাড়াটে সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে সামচেল মাদবর ও তার আত্মীয় কাশেম মাদবরের বাড়িতে অতর্কিত আক্রমন করে। হামলাকারীরা এলাকার বিদ্যুতের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে অন্ধকারে একাধিক ককটেল বিষ্ফোরণ ঘটিয়ে এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করে। হামলাকারীরা ৫টি বাড়ি ভাংচুর করে। সামচেল মাদবরের ছেলের শ^শুড় কাশেম মাদবরের বাড়িতে আক্রমন করে বাড়িঘর কুপিয়ে তছনছ করে দেয় হামলাকারী। এ সময় হামলাকারীরা কাশেম মাদবর, কাশেম মাদবরের স্ত্রী রাজিয়া বেগম, কাশেম মদবরের মেয়ে ও সমচেল মাদবরের পুত্রবধূ রুজিনা আক্তার, কাশেম মাদবরের ছেলে ইয়াকুব বেপারী, খলিল মাদবরের ছেলে দেলোয়ার মাদবর, খালেক মাদবরের ছেলে সবুজ মাদবর ও ছাবের আলী মাদবরের ছেলে দবির মাদবরকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। হামলাকারীরা ঘরের মূল্যবাণ আসবাবপত্র ভাংচুর এবং স্বর্ণালংকার ও টাকা পয়সা লুটাপাট করে নিয়ে যায়। আহদের উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হলে কাশেম মাদবর ও দেলোয়ার মাদবরের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় চিকিৎসক তাদেরকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। খবর পেয়ে পালং থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। এ ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। ঘটনার পর নূর মোহাম্মদ কাজী ও খলিল কাজী সহ তাদের সন্ত্রাসী বাহিনী এলাকা ছেড়ে পালিয়েছে।
    পালং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আসলাম উদ্দিন বলেন, হামলার ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে। এলাকায় পুলিশ মোতায়ের রয়েছে। পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক আছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। অভিযুক্তদের আইনের আওতায় আনা হবে।

    :: শেয়ার করুন ::

    Comments

    comments

    সংবাদটি ফেইসবুকে শেয়ার করুন

    দৈনিক রুদ্রবার্তা/শরীয়তপুর/১৩ জুন ২০১৯/


    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত


    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
    ১০১১১২১৩১৪
    ১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
    ২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
    ২৯৩০  
  • ফেসবুকে দৈনিক রুদ্রবার্তা

  • error: নিউজ কপি করা নিষেধ!!