শুক্রবার, ১৪ই আগস্ট, ২০২০ ইং, ৩০শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৪শে জিলহজ্জ, ১৪৪১ হিজরী
শুক্রবার, ১৪ই আগস্ট, ২০২০ ইং

ভেদরগঞ্জে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে এক স্কুলছাত্রকে ছুরিকাঘাত

ভেদরগঞ্জে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে এক স্কুলছাত্রকে ছুরিকাঘাত

শরীয়তপুর ভেদরগঞ্জ উপজেলায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আবির হাওলাদার (১৭) নামে এক স্কুলছাত্রকে ছুরিকাঘাতে আহত করেছে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নান বেপারীর ছেলে তন্ময় বেপারী (২২) ও তার বন্ধুরা। সোমবার রাত ৮টার দিকে ভেদরগঞ্জ বাজারের পাইলটের দোকানের সামনে এ ঘটনা ঘটে।
আহত আবির হাওলাদার ভেদরগঞ্জ পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডের গৈড্যা গ্রামের সোহেল হাওলাদারের ছেলে। সে ভেদরগঞ্জ পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র।
আবির জানান, আগামি ২৬ জুলাই তাদের বিদ্যালয়ে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করবে। সেই অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ভেদরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নান বেপারীকে দাওয়াত করতে দাওয়াত কার্ড নিয়ে তার বাড়িতে যাচ্ছিল। আবিরের সাথে তার পাঁচ সহপাঠি ছিল। ভেদরগঞ্জ বাজারের পাইলটের দোকানের সামনে পৌঁছলে আব্দুল মান্নান বেপারীর ছেলে তন্ময় বেপারী তাদের ডেকে নিয়ে চা খাওয়াতে বসায়। কিছুক্ষণ পর তন্ময় আবিরকে বলে তুই সাজিদুল হাওলাদারের ছোট ভাই না। সাজিদুল ও তন্ময়ের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দ্বন্দ্ব চলছে। আবির হ্যা বললে তাকে পকেট থেকে ছুরি বের করে ছুরিকাঘাত করে তন্ময়। তন্ময়ের অন্যান্য বন্ধু ইমন, বাপ্পি, অন্তুরা মিলে আবিরের সহপাঠিদের কিল ঘুষি মেরে আহত করে। এ সময় স্থানীয়রা আবিরকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ভেদরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। তার বাম উরুতে দুইটি সেলাই লেগেছে।
ভেদরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. আলমগীর হোসেন জানান, ছেলেটির রানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে, ক্ষতর গভীরতা অনেক। প্রাথমিক চিকিৎসা ও সেলাই করে হাসপাতালে ভর্তি রাখা হয়েছে।
আবিরের মা কল্পনা বেগম বলেন, আমার ছেলে কোন রাজনীতি করে না। কারো সাথে কোন শত্রুতা নেই। তবুও কোনো কারণ ছাড়াই ছেলেকে তন্ময় বেপারী ছুরি দিয়ে আঘাত করেছে। আমি এর দৃষ্টান্তমূলক বিচার চাই।
জানতে চাইলে তন্ময় বেপারীর বাবা ভেদরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নান বেপারী বলেন, ছোট ছোট ছেলেরা মারমারি করেছে। আমার ছেলে তন্ময় এর সাথে জড়িত না।
ভেদরগঞ্জ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নজরুল ইসলাম বলেন, আহত আবিরকে হাসপাতালে দেখতে গিয়েছিলাম। এখনো কোন অভিযোগ পাইনি। এ ঘটনায় আজ সন্ধ্যায় দুই পক্ষ মিমাংসার জন্য বসবে শুনলাম।